ধর্মীয় মূল্যবোধের প্রতি সম্মান দেখিয়ে পেছানো হল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন

অবশেষে ধর্মীয় মূল্যবোধের প্রতি সম্মান দেখিয়ে সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন পিছিয়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সম্প্রীতি বাংলাদেশ এই ঘোষণাকে স্বাগত জানায়। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় জনগোষ্ঠী সনাতন ধর্মালম্বিদের পবিত্র সরস্বতী পূজার দিনে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন কর্তৃক যে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছিল অবশেষে তার সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য সমাধানে সম্প্রীতি বাংলাদেশ স্বস্তি বোধ করছে।

নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের পক্ষ্যে সোচ্চার হয়ে উঠেছিল ডাকসু, জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদ সহ ঢাকা বিশ্যবিদ্যালয় এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। ঢাকা বিশ্যবিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাশ্রিত বিভিন্ন শ্রেণী পেশার সজ্জনেরাও ছিলেন নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের পক্ষ্যে। আমরণ অনশন করে অসুস্থ হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক ছাত্র। দেশের চিরায়ত অসাম্প্রদায়িক দর্শনের প্রতি সম্মান জানিয়ে পূজার দিন ভোটের তারিখ নির্ধারণ করার বিষয়ে ধর্মের ভেদাভেদ ভুলে নানা মহল থেকে আপত্তি উঠেছিল। নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের বিষয়টি এবার আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছিল।

সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে এবং সারা দেশে ছড়িয়ে থাকা অসংখ্য নেতা-কর্মীদের মতামত নিয়ে নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের অনুরোধ জানিয়ে সম্প্রীতি বাংলাদেশও বিবৃতি দিয়েছিল যা দেশের জাতীয় দৈনিক, টেলিভিশন চ্যানেল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুরুত্বের সাথে প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছিলেন সর্ব ধর্মের গুরুত্বপূর্ণ নেতৃবৃন্দ সহ দেশের বিভিন্ন পেশা ও সুধী সমাজের সম্মানীয় ব্যক্তিবর্গ।

সম্প্রীতি বাংলাদেশ এবং দেশের অন্যান্য সংগঠনগুলোর অনুরোধ ও দাবির প্রেক্ষিতে ধর্মীয় মুল্যবোধের প্রতি সম্মান দেখিয়ে ভোটের তারিখ পিছিয়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়ে নির্বাচন কমিশন যে বিচক্ষণতার পরিচয় দিল তা ভবিষতে দৃষ্টান্ত হিসেবে উল্লেখিত হবে।

সরস্বতী পূজার দিনে নির্বাচন না করার দাবী জানিয়ে সনাতন ধর্মালম্বিদের সমর্থনে সর্ব ধর্মের মানুষের এগিয়ে আসার মাধ্যমে আবারো প্রমাণিত হলো এই ভূখণ্ডের চিরায়ত অসাম্প্রদায়িক সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের রূপটি সত্য ও সুন্দর। প্রমাণিত হল বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্যের নিবিড় দর্শনে বিশ্বাসী এদেশের মানুষ। সম্প্রীতি বাংলাদেশ এই সকল মানুষকে শ্রদ্ধা জানায়।

সরস্বতী পূজার দিনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার ব্যাপারে সনাতন ধর্মালম্বি ভোটারদের ভোটে অংশগ্রহণ না করার যে আশংকা দেখা দিয়েছিল, নির্বাচন কমিশনের সুবিবেচনায় তা দূর হবে বলে বিশ্বাস করে সম্প্রীতি বাংলাদেশ। একই সাথে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অসাম্প্রদায়িক প্রার্থীকে নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে সনাতন ধর্মালম্বি ভোটারগনকে বিগত দিনের মতোই সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার আহ্বান জানায় সম্প্রীতি বাংলাদেশ।

ধন্যবাদান্তে

পীযূষ বন্দোপাধ্যায়
-আহবায়ক, সম্প্রীতি বাংলাদেশ
অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল)
-সদস্য সচিব, সম্প্রীতি বাংলাদেশ

স্বাক্ষরদাতাঃ

পীযূষ বন্দোপাধ্যায়, শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী, প্রফেসর আঃ মান্নান, শফিকুর রহমান (এমপি), বিচারপতি সামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, প্রফেসর কামরুল হাসান খান, অ্যারোমা দত্ত (এমপি), মেজর জেনারেল (অবঃ) মোহাম্মদ আলি শিকদার, মোঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ, মেজর জেনারেল (অবঃ) জন গোমেজ, অধ্যাপক ডাঃ উত্তম বড়ুয়া, অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল), এ,কে এম আতিকুর রহমান, প্রফেসর আ ব ম ফারুক, ডঃ অসীম সরকার, ডাঃ নুজহাত চৌধুরী, আলি হাবীব, কর্নেল(অবঃ ) সি কে দাস, ডঃ আর এম দেবনাথ, প্রমোদ দত্ত, জয়শ্রী বন্দোপ্যাধায়, অনয় মুখার্জী, বিপ্লব কুমার পাল, দুলাল আচার্য্য, সুদিপ্ত দাস, তিমির নন্দী, মিহির কান্তি ঘোষাল, তাপস হালদার, অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দার, ডঃ বিমান বড়ুয়া, কল্যান সাহা, বরুন ভৌমিক, রেভারেন্ড মার্টিন অধিকারী।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email25