১শত ৬৫ কোটি টাকা ব্যয়ে চারটি প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে-সিটি মেয়র

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ বাংলাদেশ মিউনিসিপ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ড (বিএমডিএফ) এর অর্থায়নে নগরীতে ৪টি প্রকল্পের কাজ শিঘ্রই শুরু হবে। প্রকল্পগুলোর মধ্যে বাকলিয়ায় আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত বিশ্ব মানের স্পোটর্স কমপ্লেক্স, হালিশহরস্থ ফইল্যাতলী বাজারে ১০ তলা বিশিষ্ট অত্যাধুনিক কিচেন মার্কেট নির্মাণ, ফিরিঙ্গি বাজার এলাকায় বহুতল বিশিষ্ট কিচেন মার্কেট এবং ২৭ নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ড অফিসের জায়গায় বহুমুখি বহুতল মার্কেট নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এই চারটি প্রকল্প বাস্তবায়নে বিএমডিএফ ১’শ ৫০ কোটি টাকা অর্থ সহযোগিতা প্রদান করেছে। ১’শ ৬৫ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের অবশিষ্ট অর্থ ১৫ শতাংশ হারে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন বহন করবে। আগামী ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর নাগাদ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের মেয়াদ নির্ধারিত রয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজ শুরু করা হবে। এ চারটি প্রকল্প সমহের মধ্যে সুপার সপ, কমিউনিটি সেন্টার,কনফারেন্স হল,ট্রেনিং রুম, ডে-কেয়ার সেন্টার, বিউটি পার্লার, খেলার মাঠ, গ্রাউান্ড ষ্ট্যান্ড, টিকেট বুথ, ওয়াকওয়ে, গ্যালারী ইত্যাদি সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

আজ দুপুরে চসিক কে বি আবদুচ ছাত্তার মিলনায়তনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৫ম নির্বাচিত পরিষদের ৩৬তম সাধারণ সভার সভাপতি সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এ তথ্য প্রকাশ করেন। সভায় অর্থ ও সংস্থাপন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্যরক্ষা, নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন, হিসাব নিরীক্ষা ও রক্ষণাবেক্ষণ, নগর অবকাঠামো নির্মাণ ও সংরক্ষন, পানি ও বিদ্যুৎ, সমাজকল্যাণ ও কমিউনিটি সেন্টার, পরিবেশ উন্নয়ন, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, যোগাযোগ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, আইন শৃংখলা এবং পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষন বিষয়ক স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যানবৃন্দের স্ব-স্ব স্ট্যান্ডিং কমিটির কার্যবিবরণী উপস্থাপন করেন। সভায় বিস্তারিত আলোচনান্তে জনগুরুত্বপূর্ণ কার্যবিরণী সমূহ অনুমোদন ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় নির্বাচিত পরিষদের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর, অফিসিয়্যাল কাউন্সিলর সহ সিটি কর্পোরেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিভাগীয় প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন। সভা পরিচালনা করেন চসিক ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড.মুহম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান । সভাপতির বক্তব্যে সিটি মেয়র বলেন আগামী ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য সম্মান ও মর্যাদার সাথে পালন করা হবে। এ লক্ষ্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন দিনব্যাপী ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী আসন্ন কোরবানির ঈদের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। ঈদের দিন বিকাল ৪ টার মধ্যে পুরো নগরীতে কোরবানীর দিন জবাইকৃত পশুর বর্জ্য অপসারণ এবং ঈদের পরের দিন শেষ রাত পর্যন্ত বর্জ্য অপসারনের লক্ষে ৪১টি ওয়ার্ডকে উত্তর,দক্ষিণ,পূর্ব,পশ্চিম-৪টি জোনে ভাগ করা হয়েছে। প্রত্যেক জোন তদারকির জন্য একটি করে

‘উপ-কমিটি’ গঠন করা হয়েছে। প্রতি ওয়ার্ডে চসিক’র ১৪ জন করে পরিচ্ছন্ন কর্মী সার্বিক দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত থাকবে। বর্জ্য অপসারন কার্যক্রম নিশ্চিত কল্পে কোরবানি ঈদের দিন সকাল ৯ টার মধ্যে দায়িত্বে নিয়োজিত স্থায়ী ও অস্থায়ী পরিচ্ছন্ন কর্মীদের স্ব স্ব ওয়ার্ডে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।এ সমস্ত কার্যক্রম ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলরা তদারকি করবেন। তিনি নগরীর যানজট সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে যত্রতত্র পার্কিং এবং পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা আনায়ন,বাস,সিএনজি,অটোরিক্সা,রিক্সা মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দের সাথে পৃথক পৃথক বৈঠক অনুষ্ঠানের কথা সভায় উল্লেখ করেন। মেয়র বলেন, নগরবাসীর কাছে আমার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রয়েছে নগরীর কাঁচা রাস্তা সমূহ পাঁকা করন। নগরীর কোথায় কোথায় কাঁচা রাস্তা বিদ্যমান রয়েছে তা আগামী ৭ দিনের মধ্যে প্রকল্প প্রদানের জন্য কাউন্সিলরদের প্রতি আহবান জানান। এ প্রসঙ্গে সিটি মেয়র বলেন, নগরে প্রায় দেড় থেকে ২ লাখ অবৈধ রিক্সা চলাচল করে। বিভিন্ন সমিতি,সংগঠনের নাম ব্যবহার করে এসব রিক্সা চলাচল করে। নগরে যানজট সৃষ্টির জন্য রিক্সা একটি অন্যতম কারণ। লাইসেন্স বিহীন এসব রিক্সা চলাচল করতে দেয়া হবে না। ৪১ ওয়ার্ড জুড়ে অবৈধ রিক্সা উচ্ছেদে মোবাইল কোর্ট কার্যক্রম পরিচালনা করবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। বর্তমানে নগরে মোট ১ লাখ রিক্সা চলাচলের অনুমোদন রয়েছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের হিসাব মতে প্রায় ৫৩ হাজার রিক্সার বৈধ লাইসেন্স রয়েছে। সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ৫ম নির্বাচিত পরিষদের তৃতীয় বর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠান আয়োজনের ব্যাপারে আলোচনা হয়। আগামী ৩০ জুলাই বর্ষ পূর্তি উদযাপনের তারিখ ধার্য করা হয়েছে। মেয়র পরিষদের দায়িত্ব গ্রহণের এই তিন বছরে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বাস্তবায়িত উন্নয়ন প্রকল্প,চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি প্রতিবেদন সভা আয়োজনের মাধ্যমে জনসাধারণের ্কাছে উপস্থাপনের জন্য কাউন্সিলরদেরকে পরামর্শ প্রদান করেছেন।

সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাদক, জঙ্গীবাদ, বাল্যবিবাহ সহ বিবিধ বিষয়ক সচেতনতামূলক প্রচারনা, জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি, পেশাজীবী, এনজিও সংগঠন সংশ্লিষ্ট থানার সমন্বয়ে মাদক বিরোধী সভা অনুষ্ঠান, মাদক বিরোধী জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে লিফলেট বিতরণ,ওয়ার্ড কমিটিগুলোতে সংশ্লিষ্ট এলাকার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের ১ জন করে পরিদর্শককে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভূক্তি, সিজেকেএস আয়োজিত ২০১৭-১৮ বিভিন্ন ইভেন্টের খেলায় অংশ গ্রহন, ঢাকাস্থ জাতীয় কারাতে প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করা হয়। সভায় সদ্য প্রয়াত নগরীর বিশিষ্ট ব্যক্তিদের রুহের মাগফেরাত কামনা, দেশ-জাতি ও চট্টগ্রামের সমৃদ্ধি কামনায় বিশেষ মুনাজাত করা হয়। মুনাজাত পরিচালনা করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মাদ্রাসা পরিদর্শক মাওলানা হারুন উর রশিদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email