হালিশহরে জন্ডিস এর প্রাদুর্ভাব নিয়ে চসিকের পর্যালোচনা সভা

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ নগরীর হালিশহরে জন্ডিসের প্রাদুর্ভাব নিয়ে এক পর্যালোচনা সভা আজ রবিবার বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন উপস্থিত ছিলেন। এতে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষনা ইনষ্টিটিউট (আইইডিসিআর) ও ন্যাশনাল ইনফ্লুয়েঞ্জা সেন্টার (এনআইসি) বাংলাদেশ এর কর্মকর্তা ও বিজ্ঞনীরা হালিশহর ও আশপাশের এলাকায় সার্ভে করে গত কয়েকমাসে জন্ডিসের প্রাদুর্ভাবে যে সকল কারণ ও সমস্যা চিহ্নিত করা হয়েছে তা সিটি মেয়রের নিকট তুলে ধরেন। সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত সিভিল সার্জন ডা. শফিকুল ইসলাম, আইসিডিডিবির রেবেকা সুলতানা, খালেদ সাইফুল্লাহ, আইইডিসিআর এর ডা. পারভেজ আহমেদ, ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের (হু) এর কর্মকর্তা আলাউদ্দিন আহমেদ, চট্টগ্রাম ওয়াসার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মাকসুদুল আলম, কনসালটেন্ট মিলন চক্রবর্তী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

গত মে মাস থেকে হালিশহর ও আশপাশের এলাকায় এ জন্ডিসের প্রাদুর্ভাব লক্ষ করা যায়। যা ক্রমান্বয়ে আগ্রাবাদ ডবলমুরিং এলাকায় ছড়াচ্ছে। আইইডিসিআর ও এনআইসি এর কর্মকর্তাদের তথ্য উপাত্তে জন্ডিসের প্রদুর্ভাবের জন্য যে সকল সমস্যাকে চিহ্নিত করা হয়েছে তার মধ্যে ওয়াসার সংযোগ লাইন ক্রস ড্রেইন ও ড্রেইনের মধ্য দিয়ে নিয়ে যাওয়া, সেপটিক ট্যাংকের সাথে সার্ফেজ ড্রেনের সংযোগ থাকাকে অন্যতম কারণ হিসেবে চিহ্নিতকরা হয়। তারা এজন্য ক্রস ড্রেইনের মধ্য দিয়ে যাওয়া ওয়াসার পাইপ লাইনের দূষণ প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেয়া,বাড়ির মালিকদের তাদের রিজার্ভার ওয়াসার নির্দেশিত পন্থায় ব্লিচিং পাওডারের মাধ্যমে পরিস্কার করা, সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে কন্ট্রোল রুম খোলার পরামর্শ দেন। এছাড়াও ওই এলাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেশি হওয়ায় পানি বিশুদ্ধকরণে তাদের পক্ষ থেকে চসিকের সহযোগিতায় সচেতনতামূলক কর্মসূচি ও চট্টগ্রাম ওয়াসাকে সুয়্যারেজ সিস্টেম এর উদ্যোগ এবং মেয়রের তত্ত্বাবধানে একটি মনিটরিং সেল গঠনের প্রস্তাব দেয়া হয়।
সভায় সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে হালিশহর এলাকায় জন্ডিসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর থেকে ওই এলাকায় জনসাধারণকে সচেতন করতে ব্যাপকভাবে মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করা হয়। এছাড়াও হালিশহর এলাকায় সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত যে সকল নগর স্বাস্থ্য সেবাকেন্দ্র রয়েছে সেগুলোকে চিকিৎসাসেবা প্রদান সহ যে কোন ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলায় সার্বক্ষণিকভাবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তিনি আইইডিসিআর ও এনআইসি’র কর্মকর্তাদের জনস্বার্থে এ ধরনের সার্ভে পরিচালনার মাধ্যমে মুল্যবান পরামর্শ দেয়ায় আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। মেয়র তাদের অভিজ্ঞতা ও পরামর্শগুলো বিবেচনায় রেখে কর্পোরেশন কাজ করবে বলে আশ্বস্থ করেন। তিনি এ ব্যাপারে জনগণকে সচেতন করতে আতংক না ছড়িয়ে ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়াকে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার আহবান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email