সড়কের জায়গা দখলের অভিযোগ, চন্দনাইশ জিহস ফকির পাড়া সড়কের উন্নয়ন কাজ শেষ না হওয়ায় জন দূর্ভোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, চন্দনাইশ:
চন্দনাইশ পৌরসভার জিহস ফকির পাড়া সড়কের উন্নয়ন কাজ ১ বছরেও শেষ না হওয়ায় জনদূর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চন্দনাইশ পৌরসভার জিহস ফকির পাড়া সড়কটি নয়াহাট-বাগিচাহাট সড়ক থেকে শুরু হয়ে পুরো জিহস ফকির পাড়া ইউ আকৃতির হয়ে আবদুলবারি হাট ব্রিজের সাথে সংযুক্ত হয়। ১ হাজার ৩৫০মি. সড়কের জন্য স্থানীয় প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে ৬০ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়। গত ৮ জুন’১৭ তারিখে স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাজের আনুষ্টানিক উদ্বোধন করেন। সিডিউল অনুযায়ী একই বছর ডিসেম্বর মাসে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ১ বছরে সড়কের বালির কাজ ছাড়া কিছুই করতে পারেনি। তাছাড়া সড়কের বেশ কিছু জায়গায় পার্শ্ববর্তী প্রভাবশালী মহল সড়কের জায়গা দখল করার অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয়রা।

এ ব্যপারে ঠিকাদার প্রতিষ্টানের স্বত্বাধিকারী মোরশেদুল আলম বলেছেন, বরাদ্ধকৃত অর্থাভাব এবং বেশ কিছু জটিলতার কারণে বালির কাজ সম্পন্ন করলেও মেকাডাম ও কার্পেটিংয়ের কাজ শুরু করতে পারেননি। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে মেকাডামের কাজ শুরু করে পরবর্তি ১ মাসের মধ্যে কার্পেটিংয়ের কাজ সম্পন্ন করা হবে বলে তিনি জানান। স্থানীয় কাউন্সিলর মো. শাহাদাত হোসেন খোকন বলেছেন, জিহস ফকির পাড়ার প্রায় ১৫ হাজার লোকের একমাত্র চলচলের এ গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ না করায় এলাকাবাসির দুর্ভোগের শেষ নেই। উপজেলা প্রকৌশলী মো. বিল্লাল হোসেন বলেছেন, দু’দফা বন্যার কারণে সড়কের কাজে ক্ষতি সাধন হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। বৃষ্টি কমলে মেকাডামের কাজ শেষ করে কার্পেটিংয়ের কাজ আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করা হবে।

পৌর মেয়র মাহাবুবুল আলম খোকা বলেছেন, ঠিকাদারকে এ বিষয়ে অনেকবার তাগিদ দেয়া হয়েছে। বিভিন্ন অজুহাতে তিনি নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ করেননি। এ ব্যপারে উপজেলা প্রকৌশলীকেও একাধিকবার বলা হয়েছে। তাছাড়া সড়কের বেদখলকৃত জায়গা উদ্ধার করার পর নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ না করায় তা পুনরায় বেদখল হয়ে যাচ্ছে।

মুকিম //শনিবার , ১৪ জুলাই ২০১৮, ২৯ আষাঢ় ১৪২৫, ২৭ শাওয়াল ১৪৩৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email