সাভারের আশুলিয়ায় ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ল্যাব কর্মকর্তাসহ ২ মরদেহ উদ্ধার

সাভারের আশুলিয়ায় একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে ল্যাব কর্মকর্তাসহ দুজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহতদের মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে নেশাজাতীয় দ্রব্য সেবনে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার(১৭ এপ্রিল) সকাল দশটার দিকে আশুলিয়ার শিমুলিয়া ইউনিয়নের জিরানী বাজার এলাকার হাজী আনোয়ার মর্ডান ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড ডক্টরস চেম্বারের নিচতলার একটি কক্ষ থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতরা হলেন ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা থানার কাঠভাওলা গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে ল্যাব কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন (১৯) এবং স্থানীয় কুদ্দুস আলীর ছেলে নাবিনূর (১৮)। নাবিনূর কাঠের দোকানে কাজ করতেন।

নিহত ফরহাদের স্বজনরা জানায়, ফরহাদ প্রতিদিন রাতে খাওয়ার পর ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ঘুমাতে যেতেন। সকাল হলে বাসায় ফিরে আসেন। কিন্তু আজ বাসায় ফিরতে দেরি হলে ফরহাদের ছোট ভাই শরীফকে পাঠানো হয় তাকে ডেকে আনতে।

শরীফ অনেক ডাকাডাকি করলেও দরজা না খোলায় ডায়াগনস্টিক সেন্টারের অন্যান্যরা ছুটে আসে। পরে তারা আশুলিয়া থানাকে বিষয়টি জানায়।

খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে। এসময় তাদের পাশে চানাচুর, চিপস ও কোমল পানীয়র বোতল পাওয়া গেছে।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল হাসান বলেন, খবর পেয়ে দরজা খুলে মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ফরহাদ বন্ধু নাবিনূরকে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ঘুমাতে নিয়ে আসে। পরে রাতে কোনো ধরনের নেশাজাতীয় দ্রব্য সেবন করে। এতে তাদের মৃত্যু হয়। তবে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email