ইপিজেডে সরকারী দলের সাবেক কমিশনারের নাম ব্যবহার কর সম্পত্তি দখল ও হত্যার হুমকিতে বাড়ী ছাড়া করার অভিযোগ...!

সাংবাদিক সম্মেলনের ব্যতিক্রম তথ্য ফাসঁ!

ইপিজেডে সরকারী দলের সাবেক কমিশনারের নাম ব্যবহার কর সম্পত্তি দখল ও হত্যার হুমকিতে বাড়ী ছাড়া করার অভিযোগ…!

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আজ ২রা এপ্রিল সোমবার (দুপুর ) সাড়ে১২টায় নগরীর ইপিজেড থানাস্থ(সাবেক বন্দর থানা) দক্ষিণ হালিশহর, কাজীর গলির এক পুরোতন ঘটনার চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ করে সাংবাদিক সম্মেলন করে রীনা আক্তার, স্বামী-আমির হোসেন,সাং-৩৯নং ওয়ার্ড) চট্টগ্রাম জানান যে, বিগত ১৯৯৬ সালের ১৫ই ফেব্র্রুয়ারি সকালের দিকে বিএনপির নির্বাচন কে বাধাঁ এবং ভোট কেন্দ্র বোম মেরে উড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পনা কালে ঐ তাজা বোমা গুলো সেদিন ব্ল্যাস্ট হয়ে আমার ভাসুর নুরুল হক’এর বসত ঘরে (ঘটনাস্থলে) দুইজন নিহত হন। নিহত দুই জনই ছিলেন হিন্দু ধর্মের,আরেকজন হাসপাতালে একদিন পরে মারা যান(যার নাম ছিল মান্নান)। যা ঐ দিন সাথে সাথে দুপুরে বিবিসি এবং পরিরে দিন পত্রিকায় প্রকাশ হয়। ঘটনায় কয়েকজন প্রতিবেশী সেই দিনের বোমার আগুনে জলসে গিয়ে মারাত্মক আহত হয়ে বিভিন্ন স্থানে আঘাত প্রাপ্ত অনেকটাই পঙ্গুত্ব আছেন। শুধু তাই নহে এরা সরকারী বিদুৎ ,গ্যাস পানি অবৈধ লাইন দিয়ে ব্যবহার করে সরকারী রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার বিষয়টি চসিক, বিদুৎ বিভাগ(হালিশহর)গত কয়েকদিন আগে জরিমানা করার বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ হয়।

দুই প্রষ্টার লিখিত বক্তব্যে রিনা আরো জানান,এই সত্য ঘটনা না জানাতে আমার শশুর/শাশুরীর পক্ষের লে কের নিকট আত্মীয় সাবেক কমিশনার আসলাম বিভিন্ন সময় আমার পরিবার মিথ্যা আশ্বাসে মামলা ও জিডি / থানা অভিযোগ দিতে ও দেননি । কিন্তু গত ১৭/০৩/২০১৮ইং দুপুরের সময় প্রতিপক্ষ আমার ভাসুর নুরুল হক,দেবর-আমিরুল বশর, ভাইপো মোঃ পারভেজ সহ আরো একাধিক বহিরাগত সন্ত্রাসী ভাড়া করে এনে সরকারী দলে সাবেক কমিশনার আসলামের সহযোগিতায় জোর পূর্বক বাড়ী ভিটে দখল এবং চলাচলের পথ অযৌক্তিক দখল নিতে বাধাঁদিলেই আমাকে মারাত্মক ভাবে আহত করে আমার স্বামী আমীর হোসেন কে সন্ত্রাসীরা হামলা করে মাঠিতে ফেলে হত্যা চেষ্টা করেন । আর আমি বাধা দিতে গেলে আমাকে লাথি,কিল ঘুষি ,চুলের মুঠি ধরে টানা হেছড়া করতে থাকলে স্থানীয় প্রতিবেশীরা এসে আমাদের কে রক্ষা করে।

আর এতো নির্যাতন করার পরে বিজ্ঞ আদালতে দুটি মামলা দায়ের করি, একটি ১৪৪ ধারা(হিস্তি অবস্থা বজায় রাখা)’র আর একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালত-২,মামলা নং ১৯৮/১৮(ইপিজেড)। মামলা দুটিই নিকটস্থ ইপিজেড থানায় তদন্তধীন।তার সুষ্ট বিচার বা তদন্ত নাকে ঐ সাবেক কমিশনার (আঃলীগ) পরিচয় দিয়ে পুলিশ প্রশাসন কে অবৈধ ভাবে টাকার বিনিময়ে নিজের ভাইয়ের বোনের সম্পত্তি দখল নিতে খুন করতের দ্বিধা বোধ না করার অভিযোগ করেন।

আসামী রা অবৈধ টাকার জোরে মামলা গুলো তুলে নিতে বিভিন্ন ভাবে চাপ প্রয়োগ কারা ছাড়াও প্রকাশ্যেই হত্যার হুমকি দিলে আমি নেজেই কাপনরে সাদা কাপড় পড়ে সরাসরি থানা উপস্থিত হলে ইপিজেড থানার ওসি তদন্ত সাথে সাথে ১৭/০৩/২০১৮ইং দুপুরে পুলিশ পাঠিয়ে অবৈধ কাজ বন্ধ করান এবং বিজ্ঞ আদালতের শান্তি পূন্য বজায় রাখতে বলে যান। গত ২২/০৩/১৮ইং রাতে বিচার করে দেওয়ার নামেথানা ডেকে দুটি ব্ল্যাইন্ড (সাদা)স্ট্যাম্প নিয়ে ঐ নেতা ও পুলিশ যেভাবে বলে তা মেনে নিয়ে মামলা তুলে নিতে ধমকি দেন। না হলে কেউ কিছ করতে পারবে না বলে শাসিয়ে থানা থেকে বের করে দেন। বর্তমানে আমি পরিবার-পরিজন নিয়ে খুবই দুচিন্তাই আছি। নুরুল হকের বিদেশ ফেরত ছেলে পারভেজ আমার শিশু কন্যা কে নির্যাতন,ছোট ছেলে গুম করার হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন।প্রতিপক্ষরা চোরাকারবারী ও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত বিধায় আমরা বাধাঁ দিলেগত বছর মিথ্যা মাদকের মামলায় আমার স্বামীকে জেলে পাঠায়।

রিনা আক্তার এদের অন্যায় কর্মকান্ডের অনেক তথ্য জানে বলেই,তার স্বামী কে দিয়ে মিথ্যা তালাক নামা পাঠিয়ে বাড়ী ছাড়া করার গভীর ষড়যন্ত করছেন। কিন্ত প্রতিবেশী কিছু লোকের কারণে আমার পরিবার কে ক্ষতিকরতে পারেন নি।গত কয়েকদিন পূর্বে ঘটে যাওয়া পার্শ¦ ভর্তি ওয়ার্ডে(৩৮নং) সেই রকম ঘটনার হুমকি দেন ভাসুর নুরুল হক। নির্যাযিত পরিবার আরো দাবি করেন যে, এদের সাথে কিছু চিহিৃত ভ’মিদস্যূ,খুনি,সন্ত্রাসী লোক প্রায় যোগাযোগ করেন।

তাই সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে দেশের উচ্চ প্রশাসনের সহায়তা কামনা এবং চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক, পুলিশ কমিশনার,ডিসি পোর্ট সহস্থানীয় প্রশাসনের নিকট পরিবার নিয়ে সুষ্ট ভাবে বাচাঁর এবং নিরাপত্তা ও নির্যাতনকারীদের কঠোর শামিÍর দাবি জানিয়েছেন। আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন-স্বামী-আমির হোসেন,প্র্রতিবন্ধী ছেলে আক্রাম হোসেন,ছোট ছেলে তৌহিদ হোসেন, মেয়ে রিয়া মনি ও নিকট আত্মীয়রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email