সংরক্ষিত বনের জমি চাষাবাদে বাঁধা দেয়ায় বনরক্ষীকে মারধর ॥ দুই ঘন্টা পরে উদ্ধার ॥

 

পটুয়াখালী প্রতিনিধি ॥

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় সংরক্ষিত বনাঞ্চলের জমি চাষাবাদে বাধা দেয়ায় আটকে রেখে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মহিপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা হারুন তালুকদার, রফিক হাওলাদারসহ ১৫/১৬ জনের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে বনবিভাগ মহিপুর রেঞ্জ কর্মকর্তা ও বিট কর্মকর্তা ওই বনরক্ষীকে উদ্বার করেছেন।
বনরক্ষী আলাউদ্দিন জানান, পটুয়াখালীর কলাপাড়ার পর্যটনপল্লী গঙ্গামতি বিটের কাউয়ারচর সংরক্ষিত বনের ভিতরের জমি দখল করতে বাঁধা দেয়। এর জের ধরে বুধবার রাতে মহিপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা হারুন তালুকদার ও রফিক হাওলাদারসহ একদল সন্ত্রাসী চাপলী বাজারে রফিক মেম্বারের নিষিদ্ধ চিংড়ির রেনু পোনা ক্রয়ের আড়তের পেছনে তালাবদ্ধ করে মারধর শেষে একটি রুমে আটকে রাখা হয়। খবর পেয়ে বনবিভাগ মহিপুর রেঞ্জ কর্মকর্তা আবুল কালাম ও বিট কর্মকর্তা পলাশ চক্রবতী দুই ঘন্টা পর রাত সাড়ে ৯ টায় তাকে মুক্ত করে।
হারুন তালুকদার জানান, চর কাউয়ার খালেকের বাড়িতে বনরক্ষী আলাউদ্দিন থাকেন। গরিব কোন মানুষ বন থেকে লাকড়ি আনতে কিংবা গরুকে ঘাস খাওয়াতে গেলে তাকে টাকা দিতে হয়। টাকা না দিলে গালাগাল করে। মহিলাদের অশ্রাব্য ভাষায় গালাগাল করে। যা জিজ্ঞেস করতে আলাউদ্দিনকে ডাকা হয়েছিল। তখন মানুষ তাকে ঘেরাও করেছিল। এর বেশি কিছু নয়। তবে রফিক মেম্বার গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, এমন কোন ঘটনা ঘটেনি।
বিট কর্মকর্তা পলাশ চক্রবর্তী জানান, উর্ধতন কর্মকর্তাদের ঘটনাটি অবহিত করা হয়েছে। মহিপুর রেঞ্জের রেঞ্জ অফিসার আবুল কালাম জানান, বিভাগীয় বন কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি তদন্ত করে আইনি উদ্যোগ নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email