শরীয়তপুর বাবা-ছেলেকে নিষ্ঠুর ও নির্মম নির্যাতন মামলা তুলে নিতে বাদীকে জীবননাশের হুমকি

শরীয়তপুর সদর উপজেলার সন্তোষপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র ও তার বাবাকে ছিকল দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নিষ্ঠুর ও নির্মম নির্যাতন করার ঘটনায় জড়িত আসামিরা জামিনে মুক্তি পেয়ে মামলার বাদী ও তার পরিবারকে মামলা তুলে নিতে জীবননাশের হুমকি দিচ্ছে। ভুক্তভোগী পরিবার চরম আতঙ্কে আছে।

গেল ১ মে দিবাগত রাতে শরীয়তপুর সদর উপজেলার উত্তর চন্দ্রপুর গ্রামের হালিম বেপারীর বাড়িতে চুরি সংঘটিত হয়। ওই চুরির ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বাহের চন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র উত্তর চন্দ্রপুর গ্রামের খোকন মোল্যার ছেলে শামীম (১১) ও তার বাবা খোকন মোল্যাকে ধরে নিয়ে হালিম বেপারীর বাড়ির কাঁঠাল গাছের সঙ্গে কোমড়ে লোহার শক্ত করে ছিকল লাগিয়ে গামছা দিয়ে হাত পিছমোড়া বেধে লাঠি দিয়ে বেদম মারপিট করে।এসময় নির্যাতনকারীরা শিশু শামীমকে মাটিতে শুইয়ে বুকের ওপর পাথর চাপা দেয়।

পরদিন ১০ মে সকালে গুরুতর আহত শামীম ও তার বাবা খোকন মোল্যাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে খোকন মোল্যার স্ত্রী ফাহিমা বেগম বাদী হয়ে পালং মডেল থানায় মামলা দায়ের করে।

এরপর পুলিশ করম আলী বেপারী,সাহেব আলী বেপারী ও সুমন বেপারীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে। আসামিরা জামিনে মুক্তি পেয়ে মামলার বাদী ফাহিমা বেগম ও তার পরিবারকে মামলা তুলে নিতে জীবননাশের হুমকি দেয়। ভয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে মামলার বাদী ফাহিমা বেগম বলেন, আসামিরা মামলা তুলে নিতে আমাকে জীবননাশের হুমকি দিচ্ছে।

এ বিষয়ে পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, বাদীকে হুমকি দিচ্ছে এ বিষয়টি আমার জানা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email