র‌্যাবের অফিসারও কী বাদ গেছে? একরাম নিহতের ঘটনা তদন্ত হচ্ছে: সেতুমন্ত্রী

‘বন্দুকযুদ্ধে’ কক্সবাজারের টেকনাফে কাউন্সিলর একরামুল হক নিহতের ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে র‌্যাব সদস্যদের ফাঁসির অর্ডার পর্যন্ত হয়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাবের বড় অফিসারও কী বাদ গেছে? টেকনাফের ওয়ার্ড কাউন্সিলর একরামুল হক গুলিতে নিহত হওয়ার ঘটনায় তদন্ত হচ্ছে। এখানে যদি কেউ জড়িত থাকে তাকেও ছাড় দেওয়া হবে না।

রোববার (০৩ জুন) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) মেট্রোরেল প্রকল্পের প্যাকেজ-৭ এর এ চুক্তি সই অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের একথা জানান ওবায়দুল কাদের।

সম্প্রতি দেশজুড়ে শুরু হওয়া মাদকবিরোধী অভিযান চলাকালে টেকনাফে র‌্যাবের কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ পৌর কাউন্সিলর একরামুল হক নিহত হন। এরপর থেকেই এ বিষয়ে দেশজুড়ে আলোচনা শুরু হয়।

সংবাদ সম্মেলন করে বন্দুকযুদ্ধের দিন স্ত্রী ও মেয়ের সঙ্গে কাউন্সিলর একরামুলের কথোপকথনের অডিও দেওয়া হয়। এরপর এ হত্যাকাণ্ড নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রেই ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এক পর্যায়ে সরকারের পক্ষ থেকে কয়েকজন মন্ত্রী এ ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান। রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালও বলেছেন, কাউন্সিলর একরামুল হক নিহতের ঘটনার অডিও রেকর্ড সরকারের হাতে এসেছে। এ ঘটনায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে তদন্ত করা হবে।

একই দিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, একরাম কে? জবাব চাই। একরাম আমাদের যুবলীগের সভাপতি। আমাদের লোক আমরা মেরে ফেলছি কি! একরামের ব্যাপারটা নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, আমিও বলেছি।

‘যদি তদন্তে প্রমাণিত হয় একরাম নির্দোষ। তাহলে তাকে দোষী হিসেবে যারা সাব্যস্ত করেছে তারাই দোষী হিসেবে শাস্তি পাবেন। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

অপর প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, একরাম হত্যায় তদন্ত চলছে, জড়িত থাকলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না, সে যেই হোক। আপনারা প্রধানমন্ত্রীর উপর আস্থা রাখুন। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) যখন বলেছেন, তিনি যা কিছু ধরেন শেষ না হওয়া পর্যন্ত ছাড়েন না।

‘এমনকি বদি কিংবা বিএনপির কাউকেও ছাড় দেওয়া হবে না। আমরা জেনেছি বিএনপির মধ্যেও বড় বড় ইয়াবা ব্যবসায়ী রয়েছে।’

মাদক বিরোধী অভিযান নিয়ে বুদ্ধিজীবীদের বিবৃতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সমালোচনা করার অধিকার সবার আছে। তবে মাদক বিরোধী অভিযান সর্বাত্মক রূপ নিয়েছে। সুনামির মতো ছড়িয়ে পড়েছে মাদক। তরুণদের রক্ষা করতেই এই অভিযান। দেশের মানুষ অভিযানে খুশি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email