রমজানে যাতে ব্যবসায়ীরা মূল্য বৃদ্ধি করতে না পারে সেজন্য  অভিযান অব্যাহত থাকবে — শিবলী নোমান,ইউএনও চকরিয়া

মোঃ নাজমুল সাঈদ সোহেল
কক্সবাজারের (চকরিয়া) প্রতিনিধি :

চলতি রমজান মাসে ভোগ্যপণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখতে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষের চেষ্টার কমতি নেই। ইতিপূর্বে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভোগ্যপণ্যের সঠিক মূল্য নির্ধারণপূর্বক মূল্যতালিকা  দোকানের সামনে প্রদর্শন করার কঠোর নির্দেশনা দিয়েছিলেন।এর আলোকে দোকানে মূল্য তালিকা না টাঙ্গানো, হোটেলে পঁচাবাসি খাবার রাখা এবং অবৈধভাবে গাড়ি পার্কিং করার দায়ে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ১৭ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে।চকরিয়া উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমনের নেৃতত্বে চকরিয়া থানা পুলিশ ও পৌর প্রশাসন এ অভিযান পরিচালনা করেন।আজ রবিবার দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত চকরিয়া পৌরশহওে এ অভিযান পরিচালনা করেন।  চকরিয়া পৌরসদরের মার্কেট গুলোতে তৈরী পোষাক ও কাপড়ের দোকানে চলছে গলাকাটা বানিজ্য।চকরিয়া সদরের মার্কেট গুলোতে প্রশাসনের নজরদারী বাড়ানো দরকারের প্রেক্ষিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত চকরিয়া পৌরশহরের বিভিন্ন বিপনী বিতান ঘুরে দেখেন এবং ব্যবসায়ীদের অতিরিক্ত মোনাফা না করার জন্য সতর্ক করেন।
এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সাথে ছিলেন- চকরিয়া পৌরসভার সচিব মাসউদ মোর্শেদ, উপজেলা প্রশাসনের অফিস সহকারী রতন কান্তি পাল, চকরিয়া থানা পুলিশ  ও উপজেলা  ও পৌরসভার সেনেটারী ইন্সপেক্টর।
চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন সুত্রে জানা গেছে, দোকানে মূল্য তালিকা না টাঙ্গানোর দায়ে মুদির দোকানকে ৫ হাজার টাকা, হোটেলে পঁচাবাসি খাবার রাখায় হোটেলকে ১০ হাজার টাকা এবং সড়কে অবৈধভাবে গাড়ি পার্কিং করার দায়ে তিনটি গাড়ি থেকে ২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। ভোক্তা অধিকার আইনে এসব জরিমানা আদায় করা হয় বলে উপজেলা প্রশাসনের অফিস সহকারী রতন কান্তি পাল নিশ্চিত করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, ‘রমজান মাস শুরুর বেশ কয়েকদিন আগে থেকে একাধিকবার পৌরশহর চিরিঙ্গাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ব্যবসায়ীদের সতর্ক এবং কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয় প্রতিটি ভোগ্যপণ্যের সঠিক মূল্যতালিকা তৈরি করে দোকানের সামনে প্রদর্শিত করতে।যাতে একজন ক্রেতা দোকানে গেলেই জানতে পারে  কোন পণ্যের কত মূল্য।’
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরো  বলেন, ‘রমজান মাসের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ সার্বিক বিষয়ে ব্যবসায়ীদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করার সময়ও ভোগ্যপণ্য বিক্রির সঠিক মূল্য নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা  করা হয় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সঙ্গে।’রমজানে যাতে ব্যবসায়ীরা মূল্য বৃদ্ধি করতে না পারে সেজন্য এ অভিযান চালানো হয়েছে। এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email