ম্যাক্স হাসাপাতালে অনুমোদিত ফার্মাসিস্ট নেই, নেই ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন রেজিস্ট্রেশন নম্বরও

নিউজ ডেস্কঃ দুই বছর আগেই মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে আলোচিত ম্যাক্স হাসাপাতালের ফার্মেসির। রোববার (০৮ জুলাই) সকালে র‌্যাব, স্বাস্থ্য অধিদফতর ও ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের সমন্বয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত এমন অনিয়ম পান।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম। অভিযানে সহযোগিতা করছেন ঢাকার স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রতিনিধি ডা. দেওয়ান মো. মেহেদি হাসান, ওষুধ প্রশাসন চট্টগ্রামের তত্ত্বাবধায়ক গুলশান জাহান।

গুলশান জাহান বলেন, ম্যাক্স হাসাপাতালের অষ্টম তলায় নিজস্ব ফার্মেসির লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হয়েছে ২০১৬ সালের ১৬ ডিসেম্বর। এত দিন লাইসেন্সবিহীন চলছিল।

তিনি বলেন, হাসপাতালে অনুমোদিত ফার্মাসিস্ট নেই। ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন রেজিস্ট্রেশন নম্বরও নেই।

গুলশান জাহান বলেন, প্রসিকিউশন তৈরি করেছি। অভিযান শেষে ম্যাজিস্ট্রেট শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেবেন।

অভিযানে র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকতারা ছাড়াও শতাধিক র‌্যাব অংশ নেন।

ত্রুটিপূর্ণ লাইসেন্সে, অদক্ষ-অনভিজ্ঞ ডাক্তার-নার্স দ্বারা পরিচালিত নগরের মেহেদিবাগের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে সকাল সাড়ে ১১টা থেকে অভিযান শুরু করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সম্প্রতি আড়াই বছর বয়সী শিশু রাইফা খান ভুল চিকিৎসা ও ডাক্তার-নার্সদের অদক্ষতা ও অবহেলায় এ হাসপাতালে মারা যায়। এরপর স্বাস্থ্য অধিদফতরের পর্যবেক্ষণ এবং সিভিল সার্জন মো. আজিজুল হকের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটিতে এ হাসপাতালের নানা অব্যবস্থাপনা, অনিয়ম উঠে আসে।

মুকিম // রবিবার , ০৮ জুলাই ২০১৮, ২৪ আষাঢ় ১৪২৫, ২৩ শাওয়াল ১৪৩৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email