মাদকের সাথে সম্পৃক্ত নূন্যতম প্রমাণ দিতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেব কাউন্সিলর রেজাউল

চকরিয়া প্রতিনিধি:- তৃণমূল থেকে বেড়ে উঠা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে ধারণ এবং লালন করে রাজপথের লড়াকু আওয়ামী দুঃসময়ের কান্ডারী বর্তমান চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামিলীগের যুগ্ন সাঃসম্পাদক ও পৌরসভা ২নং ওয়ার্ডের সফল কাউন্সিলর সাবেক সফল ছাত্রনেতা ও তারুণ্যের প্রতীক উদীয়মান জননেতা রেজাউল করিমকে নিয়ে অনলাইন নিউজ পোর্টাল “পরিবর্তন ডট কম” ও ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বর্তমান যুব সমাজ ধ্বংসকারী ইয়াবা ব্যবসার কথিত বাহনা দিয়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা পরায়নে মিথ্যাচার ও গভীর ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে একটি ঈর্ষান্বিত মহল। যা অত্যন্ত দু:খজনক বলে জানিয়েছেন আওয়ামিলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। ইতিপূর্বে যিনি দিন দুপুরে মাদক গাঁজাসহ ইয়াবার চালান ধরে পুলিশের কাছে আসামীসহ সোপার্দ করেছেন কি করে তার গায়ে ইয়াবা ব্যবসার কথিত বাহনার কালিমা জড়াতে পারে! ইহা সম্পুর্ণ মানহানিকর ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত ছাড়া আর কিছুই নয় এমনটাই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

স্থানীয় জনসাধারণের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ১৯৯৭ সাল থেকে প্রায় দুই যুগের কাছাকাছি সময় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বের একনিষ্ট পরীক্ষিত কর্মী।রাজনৈতিক জীবনে তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চকরিয়া পৌরসভা শাখার সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক, পৌর ২নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালনসসহ বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ চকরিয়া পৌরসভা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং চকরিয়া পৌরসভা ২নং ওয়ার্ডে বিপুল ভোটের ব্যবধানে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে সফলতা ও সুনামের সহীত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

এছাড়াও সামাজিকভাবে কাউন্সিলর রেজাউল করিম বারংবার পৌর শহরের ২নং ওয়ার্ড শাহ মজিদিয়া কমপ্লেক্স পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক, গারাঙ্গীয়া দরবারের বড় হুজুর কেবলা ও ছোট হুজুর কেবলা ( রাঃ) চকরিয়া উপজেলা তরিকত কমিটির সেক্রেটারী, চিরিংগা পুরাতন বাসসষ্টেশন জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্য, হালকাকারা বায়তুর রহমত কবরস্থান পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদকসহ ২নং ওয়ার্ডের সকল স্কুল,মসজিদ, মাদরাসাসহ সামাজিক প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটির সদস্যসহ সুনামের সহিত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

চকরিয়া পৌর আওয়ামীলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা জানিয়েছেন, সাবেক ছাত্রনেতা রেজাউল করিমের বিরুদ্ধে কতিপয় ষড়যন্ত্রকারীরা মিথ্যাচারে মেতে উঠেছে। তারা বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে প্রশাসনকে ম্যানেজ করার অপচেষ্টায় লিপ্তসহ হয়রাণীতে মেতে উঠেছে। যা তরুণ রাজনীতিবীদ ও সাবেক এ ছাত্রনেতার রাজনৈতিক যাত্রায় গতিরোধ ছাড়া আর কিছুই নয়।তাছাড়া চকরিয়া পৌরসভা সৃষ্টিলগ্ন হতে এপর্যন্ত ২নং ওয়ার্ডে রেজাউলের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব গুণবলী দিয়ে বর্তমানে ১২ কোটি টাকার অধিক উন্নয়নকাজ করে যাচ্ছেন।এধরণের হিতকর সংবাদ পরিবেষণ পৌরসভার উন্নয়নে বাধাগ্রস্ত করার সামিল। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, গোয়েন্দা সংস্থাসহ উর্ধ্বতন প্রশাসন ও রাজনীতিবীদদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এদিকে চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ২নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলর সাবেক ছাত্রনেতা রেজাউল করিম জানিয়েছেন, আমাকে জড়িয়ে অনলাইন নিউজ পোর্টালে ইয়াবা ব্যবসার নামে যে অভিযোগ উত্থাপন করা হচ্ছে তা সঠিক নয়। এতে আমার নূন্যতম সম্পৃক্ততাও নেই। আমার নির্বাচনী এলাকা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে বর্তমানে ১২ কোটি টাকার অধিক উন্নয়নকাজ করে যাচ্ছি। আমার ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য বড় ধরণের ষড়যন্ত্রের অংশ বিশেষ। আমার বিরুদ্ধে আনীত ভিত্তিহীন অভিযোগের বিষয়ে ওপেন চ্যালেঞ্জ ঘোষণা করছি।আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এলাকা থেকে মাদক মুক্ত করতে সার্বিক ভাবে প্রশাসনের সহযোগীতা করে আসছি।এরপরও আমার বিরুদ্ধে নূন্যতম সম্পৃক্ততার প্রমাণ পেলে আমি রাজনীতি ও জনপ্রতিনিধির পদ থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতিসহ সকল দোষ মাথা পেতে নেব।এছাড়াও জন্মান্তর থেকে এই পর্যন্ত বাংলাদেশের কোথাও মাদক সংস্লিষ্ট কোনপ্রকার অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত ছিলাম বা আছি প্রমাণ করতে পারলে সর্বোচ্চ শাস্থি মাথা পেতে নেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email