মহাখালীতে সাংবাদিক হেনস্তা ও নির্যাতনের সব ঘটনার তদন্ত করে ব্যবস্থা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পুলিশের হাতে সাংবাদিক হেনস্তা ও নির্যাতনের সব ঘটনার তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘মহাখালীতে সাংবাদিক হেনস্তা ও পল্টনের ঘটনায় তদন্ত কমিটি কাজ করছে। তবে কারা তদন্ত করছে, সেই নামগুলো মনে নেই। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা, এমপি-কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। দোষ করলে সাজা পেতেই হবে।’

‘দেখেন তদন্ত চলছে, অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে’ বলেও আশ্বাস দেন তিনি।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘Rav মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান করছে। তাদের অভিযানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বেশ কয়েকজন মারা গেছেন। এ জন্য আমরা আসল অপরাধীদের বিষয়ে জানতে পারলাম না। এ অভিযানকে কীভাবে দেখছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এমন ঘটনায় একজন ম্যাজিস্ট্রেট তদন্ত করে থাকেন। এগুলোর বিষয়ে তদন্ত চলছে। বিনা বিচারে কিছু হলে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

১৭ মে (বৃহস্পতিবার) দুপুর ১টার দিকে মহাখালী রেলক্রসিং পার হতে গিয়ে হারান মো. নুরুল আমিন (৬০) নামে এক পথচারী। প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ, বিআরটিসি ও ৬ নম্বরের একটি বাসের রেষারেষিতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ওই ঘটনায় খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে পুলশের হেনস্তার শিকার হন বেসরকারি টেলিভিশন ডিবিসির রিপোর্টার আদিত্য আরাফাত। তিনি দুর্ঘটনার খবর সংগ্রহ ও ফুটেজ নিতে গেলে পুলিশ বাধা দেয়।

আদিত্য আরাফাত জানান, আমরা অফিস ফেরার সময় মানুষের জটলা ও একজন মানুষকে রক্তাক্ত অবস্থায় পাকা রাস্তা থেকে তুলতে দেখি। পাশেই বাস আটকাও দেখা যায়। ঘটনা দেখে দ্রুত ক্যামেরা সেট করি। কিন্তু পুলিশ আমাদের বাধা দেয়। তারা বলেন, দুর্ঘটনার খবর প্রচার করলে পুলিশের বদনাম হয়। আমাদের সেখান থেকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেয়া হয়। ক্যামেরার ফুটেজ ডিলেট করারও চেষ্টা চলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email