ব্যাংক খাত নিয়ে যেসব অভিযোগ করা হচ্ছে, তার সঙ্গে আমি সম্পূর্ণভাবে একমত নই: অর্থমন্ত্রী

বাজেট পূর্ব আলোচনায় জাতীয় সংসদে ব্যাংক খাতের যে সমালোচনা হচ্ছে, তার জবাব যথা সময়ে দেব। জানালেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
তিনি আজ সচিবালয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যাংক খাত নিয়ে সমালোচনার জবাব যথা সময়ে দেব। এ বিষয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছি। জুলাইয়ে এ বিষয়ে একটা সিদ্ধান্তে আসবো।

এম এ মুহিত বলেন, ব্যাংকের বিষয়ে সবচেয়ে বড় অভিযোগ খেলাপি ঋণ বেড়ে যাওয়া। এ ব্যাপারে কিছু করতে হবে। লুটপাটের কথা বলা হচ্ছে। লুটপাট মানে তো ব্যাংকের সম্পদ পরিচালকরা নিয়ে নিচ্ছেন।

‘ব্যাংক খাত নিয়ে যেসব অভিযোগ করা হচ্ছে, তার সঙ্গে আমি সম্পূর্ণভাবে একমত নই।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, এমনটি হচ্ছে না। তবে এ ক্ষেত্রে একটা খারাপ দিক রয়েছে। সেটি হচ্ছে এক ব্যাংকের পরিচালক অন্য ব্যাংকের পরিচালকদের সঙ্গে সমঝোতা করে ঋণ নিয়ে নিচ্ছেন।

‘আমি এক ব্যাংকের পরিচালক হয়ে অন্য ব্যাংক থেকে কিছু কনফ্লিক্ট ইস্যু থাকা সত্ত্বেও ঋণ নিয়ে নিচ্ছি। এসব বিষয়ে জুলাইয়ের মধ্যে কিছু একটা করবো। এ বিষয়ে আমরা মোটামুটি ঠিক করে ফেলেছি। কিন্তু এ বিষয়ে স্টেকহোল্ডারের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। তাই জুলাই পর্যন্ত সময় লাগবে।’

তিনি বলেন, ‘আগামীকাল বুধবার অর্থবিল ও পরের দিন বৃহস্পতিবার ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট পাস হবে। এ উপলক্ষ্যে আগামী পরশু একটি নৈশভোজের আয়োজন করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।’

জাতীয় পার্টির সমালোচনায় অর্থমন্ত্রী আক্ষেপ করে বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে, বিরোধীদল সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্য হয়ে বাজেট নিয়ে যে ধরনের মন্তব্য করেছেন, তা যথার্থ হয়নি। তারা বিরোধীদল হলেও আমরা কোয়লিশন সরকার করেছি।’

ক্ষোভ প্রকাশ করে মুহিত বলেন, ‘সরকারের অংশ হয়েও বাজেট বিষয়ে বিরোধীদলের সংসদ সদস্যদের বক্তব্য উগ্র এবং অযৌক্তিক।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email