বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনায় নৌমন্ত্রীকে পদত্যাগ দাবি শিক্ষার্থীদের

নিউজ ডেস্কঃ বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনায় নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খানের পদত্যাগ দাবি করেছেন শিক্ষার্থীরা।

দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে হাসতে হাসতে প্রতিক্রিয়া জানানোয় নৌপরিহন মন্ত্রী বিদ্রুপ করেছেন বলে মনে করছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এজন্য তারা নৌমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন।

সোমবার (৩০ জুলাই) সকাল থেকে বিমানবন্দর সড়ক অবরোধ করে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করেন।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এসে বিক্ষোভে অংশ নিতে থাকে। দুপুর ১২টা নাগাদ বিএএফ শাহীন কলেজ, ভাষানটেক স্কুল অ্যান্ড কলেজ, আদমজী ক্যান্টনমেন্ট, তেজগাঁও কলেজ, বাংলা কলেজ, সরকারি বিজ্ঞান কলেজসহ আশপাশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভে অংশ নিয়ে বিমানবন্দর সড়কের উভয় পাশ বন্ধ করে দেয়।

সকাল থেকে শহীদ রমিজ উদ্দিন কলেজের সামনের রাস্তায় অবস্থান নিয়ে শিক্ষার্থীরা মন্ত্রীর পদত্যাগ চেয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।

শিক্ষার্থীরা জানায়, একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটছে আর মন্ত্রী এসব ঘটনার বিচার না করে হাসি-ঠাট্টা করছেন। আমরা তার পদত্যাগ দাবি করছি।

শহীদ রমিজউদ্দিন কলেজের শিক্ষার্থী সাইদুল ইসলাম আপন বলেন, যার সন্তান মারা গেছে শুধু সেই বোঝে হারানোর কষ্ট। আর সেই মৃত্যু নিয়ে একজন মন্ত্রী কীভাবে বিদ্রুপ করেন। এই মন্ত্রীর সেল্টারেই বাস চালকরা বেপরোয়া। আমরা ঘাতক বাস চালকদের ফাঁসিসহ মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করছি।

এর আগে শিক্ষার্থীরা ৯ দফা দাবি জানিয়ে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন। ৯ দফার মধ্যে অন্যতম দাবি হচ্ছে, নৌমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীদের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে।

র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপস) আনোয়ার লতিফ খান ঘাতকদের বিচারের বিষয়ে আশ্বস্ত করতে আসলে শিক্ষার্থীরা চিৎকার শুরু করেন। তারা একসঙ্গে বলে উঠেন, নৌমন্ত্রীর বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নিবেন? তখন আবার অবস্থান অনঢ় রেখে নৌমন্ত্রীর পদত্যাগ চেয় শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন স্লোগান দিতে দেখা গেছে।

রোববার (২৯ জুলাই) সচিবালয়ে মংলা বন্দরের জন্য মোবাইল হারবার ক্রেন ক্রয়-সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে নৌমন্ত্রীকে দুই শিক্ষার্থীর বাসচাপায় নিহত হওয়ার বিষয়ে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা।

এ সময় হাসতে হাসতে মন্ত্রী পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘এটার সঙ্গে কি এটা রিলেটেড?’ তারপর বেশ কিছুক্ষণ হেসেই বিষয়টি তিনি উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শাজাহান খান বলেন, আমি শুধু এটুকু বলতে চাই, যে যতটুকু অপরাধ করবে সে সেভাবে শাস্তি পাবে। যে শাস্তি হবে সেই শাস্তি নিয়ে বিরোধিতার কোনো সুযোগ এখানে নেই।

মন্ত্রী বলেন, ভারতে মহারাষ্ট্রে একটি গাড়ি দুর্ঘটনায় ৩৩ জন মারা গেল, সেখানে কী আমরা যেভাবে এগুলো নিয়ে কথা বলি, এগুলো কী কথা বলে? এটা নিয়ে পরে আলোচনা হবে।

তিনি বলেন, ভারতে প্রতি ঘণ্টায় দুর্ঘটনায় ১৬ জন মারা যায়, আপনারাই রিপোর্ট করেছেন। এটা নিয়ে পরে কথা বলবো।

এদিকে দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর নৌমন্ত্রী হাসতে হাসতে কথা বলায় সামাজিক মাধ্যমে তীব্র ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

রোববার (২৯ জুলাই) কুর্মিটোলায় বাস চাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ঘটনায় আহত হয় আরও বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী।

আমিরুল মুকিম // সোমবার, ৩০ জুলাই ২০১৮ // ১৫ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email