বান্দরবান, পাহাড়ধস, মৃত্যু

বান্দরবানে ভারি বর্ষণে পাহাড়ধসে মাটি চাপায় পরিবারের তিনজনসহ নিহত ৪

নিউজ ডেস্কঃ বান্দরবানে ভারি বর্ষণে পাহাড়ধসে মাটি চাপা পড়ে একই পরিবারের তিনজনসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নের কালাইয়া ছড়িতে নিহত একই পরিবারের তিনজন হলেন মো. হানিফ(৩০), তার স্ত্রী রেজিয়া বেগম(২৫) এবং তাদের মেয়ে হালিমা আক্তার(৩)।

এর আগে বেলা ১২টার দিকে শহরের কালাঘাটার মিলন দাসের স্ত্রী প্রতিমা রানী দাশ(৫০) নিহত হন।

তাদের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক ইকবাল হোসেন জানিয়েছেন, পাহাড় ধসে কালাঘাটায় নিহত প্রতিমা রানীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এখনও কালাইয়া ছড়িতে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে।

সরই পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই কাশেম আলী জানান, কালাইয়া ছড়িতে পাহাড়ধসে মাটি চাপা পড়া একই পরিবারের তিনজনের মরদেহ উদ্ধারে কাজ করছে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস কর্মী এবং স্থানীয়রা।

জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসাইন জানান, রুমা ও সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ভুমিধসের ঘটনা ঘটেছে। এসব এলাকায় মাইকিং করে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত টানা ২৪ ঘণ্টা প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে জেলার সাঙ্গু ও মাতামুহুরি নদীর পানি বেড়ে শহরের নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। অতি বৃষ্টির কারণে জেলা শহর ও রুমা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটেছে।

বান্দরবান-রুমা সড়কের দলিয়ান পাড়ার কাছে মঙ্গলবার সকালে সড়কের ওপর পাহাড় ধসে পড়লে রুমা উপজেলার সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

বান্দরবান-রাঙ্গামাটি সড়কের পুলপাড়া নামক এলাকায় ব্রিজ পানির নিচে তলিয়ে গেলে সকাল থেকে বান্দরবানের সঙ্গে রাঙামাটি সড়ক যোগাযোগ বন্ধসহ সারাদেশের সঙ্গে বান্দরবানের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

পাহাড়ধসে প্রাণহানি ঘটনা ঠেকাতে জেলা প্রশাসন ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ শহর ও উপজেলায় সকাল থেকে মাইকিং করছে। ক্ষয়ক্ষতি কমাতে প্রশাসন সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন।

মুকিম // ৩রা জুলাই , ২০১৮ ইং ১৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email