বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় আনা ‘৩০৩’ ও ‘মন্ড’ ব্রান্ডের ৬৫০ কার্টন সিগারেটের চালান জব্ধ

চট্টগ্রাম বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় আনা ‘৩০৩’ ও ‘মন্ড’ ব্রান্ডের ৬৫০ কার্টন সিগারেটের একটি চালান আটক করেছে কাস্টম কর্তৃপক্ষ। চালানে মোট ১ কোটি ৩০ লাখ সিগারেটের শলাকা রয়েছে। যার বাজার মূল্য ১৩ কোটি টাকা, শুল্ক আসে ৯ কোটি।
শনিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে বন্দরের এনসিটি ইয়ার্ডে ২০ ফুট দীর্ঘ কনটেইনারটির কায়িক পরীক্ষা সম্পন্ন করেন কাস্টম হাউস কর্মকর্তারা।
এ সময় সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার নূর উদ্দিন মিলন বলেন, কাস্টম হাউসের গোয়েন্দা বিভাগ হিসেবে পরিচিত অডিট, ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড রিসার্চের ( এআইআর) কর্মকর্তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চালানটি আটক করেন।
ঢাকার পুরানা পল্টন এলাকার গ্রাম বাংলা করপোরেশনের নামে ‘এমভি ওয়েল স্ট্রেইটস’ নামের একটি জাহাজে সিঙ্গাপুর বন্দর থেকে বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) চট্টগ্রাম বন্দরে আসে ২০ ফুট লম্বা কনটেইনারটি (সিএনসিইউ ১৫০৪৬২০)। প্রতিষ্ঠানটির ঘোষণা ছিল ৫৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ ডিউটির ৩৩৭ বেল (চাক্কি) ফেল্ট বা ফোম। কিন্তু কনটেইনারটি স্ক্যানিং করে দেখা যায় কার্টনে ভরা। তখন সিগারেট বলে সন্দেহ হয় এআইআর কর্মকর্তাদের। এরপর কনটেইনারটি বন্দরের নিরাপত্তা বিভাগের জিম্মায় দেওয়া হয়।
কায়িক পরীক্ষা শেষে কাস্টম হাউসের কমিশনার ড. একেএম নুরুজ্জামান বলেন, আমরা খোঁজ নিয়ে, বিআইএন নাম্বার তদন্ত করে দেখি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানটি ভুয়া। তারা আগে কখনো আমদানি করেনি। সিগারেট আমদানিতে ৪৫০ শতাংশ ডিউটি দিতে হয়। এটি দেশের সবচেয়ে বড় চোরাচালান। রাষ্ট্রের অনুকূলে সিগারেটগুলো বাজেয়াপ্ত করা হবে। কাস্টম কর্তৃপক্ষ সিগারেটগুলোর গুণগতমান ঠিক থাকলে পর্যটন করপোরেশনের কাছে বিক্রি করা হবে। নয়তো ধ্বংস করা হবে।
তিনি বলেন, শিপিং এজেন্ট ও ব্যাংককে চিঠি দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email