তাবলিগ জামাত,মজলিশে সুরা,

ফের কাকরাইল মারকাজ মসজিদে তাবলিগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে তাবলিগ নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব

দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের বর্তমান মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভীর বিতর্কিত বক্তব্য নিয়ে তাবলিগ জামাতের দুই গ্রুপের বিভেদের মধ্যে আবারও মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার(২৮ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর কাকরাইল মসজিদে এ মারামারি ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে দুই গ্রুপকে মসজিদ থেকে বের করে দেয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার(২৮ এপ্রিল) সকালে কাকরাইল মসজিদে তাবলিগ জামাতের বৈঠক বসে। এসময় মাওলানা সাদের বিতর্কিত বক্তব্যকে ঘিরে সাদ পন্থী ও তার বিরোধী গ্রুপের মধ্যে বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে সাদ বিরোধীরা বলেন, মাওলানা সাদ যদি তার বিতর্কিত বক্তব্য থেকে সরে না আসে তাহলে তাকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না। একথা বলার সঙ্গে সঙ্গে তাদের দুই গ্রুপের মধ্যে মারামারি শুরু হয়।

এ বিষয়ে পুলিশের রমনা জোনের এডিসি এইচ এম আজিমুল হক বলেন, আমরা মারামারি খবর শুনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে কাকরাইল মসজিদে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করেছি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে তাদের দুই গ্রুপকে মসজিদ থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা দুই গ্রুপের সঙ্গে বসবো।

জাকারিয়া নামের এক তাবলিগ কর্মী বলেন, মাওলানা সাদ ভুল করেছে একথা বলায় আমাকে মারধর করেছে।

উল্লেখ্য,২০১৭ সালের ১৪ নভেম্বর রাজধানীর কাকরাইল মসজিদে তাবলিগ জামাতের সদস্য মাওলানা জুবায়ের এবং সুরা সদস্য ওয়াসিফুল ইসলামের গ্রুপের মধ্যে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। জুবায়ের পাকিস্তান গিয়ে একটি জামাতে অংশ নিয়ে আহমেদ লাকশাহ নামের একজনের সঙ্গে দেখা করে। তিনি জুবায়েরের কাছে বাংলাদেশের তাবলিগ জামাতের সদস্যদের জন্য একটি বার্তা দিয়েছিলেন। তবে বাংলাদেশে এসে তিনি সে বার্তা জানাননি। সুরা সদস্যরা অন্য মাধ্যমে বার্তার বিষয়টি জানতে পারেন। সুরা সদস্যদের বৈঠকের সময় বিষয়টি উঠে আসে এবং তখনই দুইপক্ষের সংঘর্ষ শুরু হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email