পদ্মা সেতুর চতুর্থ স্প্যানে দৃশ্যমান ৬শ’ মিটার হলো কাঠামো

জাজিরা প্রান্তে ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলারের ওপরে বসেছে পদ্মা সেতুর চতুর্থ স্প্যান। এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো পদ্মাসেতুর ৬শ’ মিটার কাঠামো।

রোববার ভোরে ৪১ ও ৪২ নম্বর খুঁটির কাছাকাছি ক্রেনটি নেয়া হয়। সকাল ৮টার দিকে ক্রেন দিয়ে ৪০ ও ৪১ নম্বর খুঁটির ওপরে স্প্যানটি তোলার কাজ শুরু হয়। পরে স্প্যানটি পুরোপুরি খুঁটির ওপর স্থাপন করা হয়।

এর আগে ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০ নম্বর পিলারে তিনটি ধূসর রংয়ের স্প্যান বসানোর মাধ্যমে ৪৫০ মিটার কাঠামো দৃশ্যমান হয় সেতুতে।

শনিবার বিকেলে জাজিরা প্রান্তের ৪২ নম্বর পিলারের কাছে পৌঁছায় স্প্যান বহনকারী ক্রেনটি। এর আগে সকাল ৯টার দিকে মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ের মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে তিন হাজার ৬শ’ টন ধারণ ক্ষমতার “তিয়ান ই” ক্রেনে প্রায় ৬ কিলোমিটার দূরে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটি আনা শুরু হয়। স্প্যান বহনকারী ক্রেনটি চলাচলের সুবিধার্থে চ্যানেল থেকে সরিয়ে নেয়া হয় পিলারের পাইল স্থাপনের জন্য ফ্লোটিং ক্রেনগুলো।

এদিকে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে পদ্মা সেতুর কাজ। সরকারের পক্ষ থেকে আশা করা হচ্ছে, ২০১৯ সালেই পুরো পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শেষ করা যাবে।

প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম গতকাল জানিয়েছিলেন, মাওয়া প্রান্ত থেকে চতুর্থ স্প্যানটি জাজিরা প্রান্তের নির্দিষ্ট গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। সবকিছু অনুকূলে থাকলে কয়েকদিনের মধ্যেই বসবে চতুর্থ স্প্যান। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের খুঁটিনাটি নানা বিষয় আছে যা অনেক সময় নির্ধারিত সময়ে হয় না।

এছাড়া মাওয়ার কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে আরও ১৬টি স্প্যান প্রস্তুত রয়েছে। এগুলোর ওপর রং দেয়ার কাজ চলছে।

পদ্মা সেতুর প্রকল্পের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, আগের পাঁচটি খুঁটিসহ আগামী দুই মাসের মধ্যে মোট ১৮টি খুঁটি দৃশ্যমান করা সম্ভব হবে।

এছাড়া আরও একটি সুখবর দিয়েছে রেল বিভাগ। সম্প্রতি রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেছেন- যেদিন পদ্মা সেতু চালু হবে, সেদিন থেকেই সেতু দিয়ে রেল চলাচল করবে। এ লক্ষ্য নিয়ে কাজ চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email