নগরীর চাইল্ড কেয়ারে নবজাতক রেখে মৃত মরদেহ দেওয়ার অভিযোগ

নগরের গোলপাহাড়ের বেসরকারি চাইল্ড ক্লিনিকের বিরুদ্ধে নবজাতক বদলে মৃত মরদেহ দেওয়ার অভিযোগ করেছেন মা রোকসানা আকতার (২১)।
তার অভিযোগ, নোয়াখালীর মাইজদীতে ১৪ এপ্রিল একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। অসুস্থতার কারণে শিশুটিকে প্রথমে নোয়াখালীর মা ও মণি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখান থেকে নিউমোনিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে চাইল্ড কেয়ার ক্লিনিকে ভর্তি করেন। সেখানে ভর্তি থাকাকালে বেসরকারি রোগনিরূপণ কেন্দ্র শেভরন ও ট্রিটমেন্টে রিপোর্টে শিশুটিকে মেয়ে হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।
মঙ্গলবার (১৭ এপ্রিল) সকালে শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করা হয়। এরপর প্যাকেট করে তুলে দেওয়া হয় মায়ের হাতে। পরে নোয়াখালীর গ্রামের বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয় দাফনের জন্য। সেখানে গোসল করানোর সময় দেখতে পান ছেলের মরদেহ। তারপর ফের অ্যাম্বুল্যান্সে করে নিয়ে আসেন চট্টগ্রাম শহরে। মধ্যরাতে অভিযোগ দেন পাঁচলাইশ থানায়।
বাচ্চার চাচা আলমগীর হিরু বলেন, আমার ভাই দুবাই প্রবাসী মহিউদ্দিনের বিয়ের ৫ বছর পর প্রথম বাচ্চা হয়। সেটি চুরি করে আমাদের সঙ্গে চরম প্রতারণা করেছে যা ক্ষমার অযোগ্য। যেকোনো মূল্যে আমরা আমাদের শিশুকে ফেরত চাই।
অভিযোগ অস্বীকার করে চাইল্ড কেয়ার হাসপাতালের পরিচালক ডা. ফাহিম হাসান রেজা বলেন, এটা একটা ভুল বোঝাবুঝি। প্রতিটি শিশুর সঙ্গে ট্যাগ লাগানো থাকে। আমাদের রেজিস্ট্রারে এটি ছেলেই ছিল। কোনো জায়গায় ভুল হচ্ছে। রিসিপশনে ভুল করতে পারে। কিন্তু রেজিস্ট্রারে ভুল হতে পারে না। ডাক্তার দেখেই রেজিস্ট্রার তৈরি করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email