জুট কর্পোরেশন এর ইজারাকৃত ভূমি থেকে অবৈধভাবে উচ্ছেদ এবং গবেষণা কাজে প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ ধ্বংসের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ জুট কর্পোরেশন ও ভূমি অধিগ্রহণ অধিদপ্তরের কতিপয় দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের বেআইনী কার্যকলাপে এবং অবৈধ হস্তক্ষেপে চট্টগ্রামের মাঝিরঘাট এর ৩১৩ রেলি কাঁচা কলোনী,স্ট্রান্ড রোড এর একজন ব্যবসায়ী ও গবেষক ক্ষতিগ্রস্ত ও সর্বশান্ত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আজ দুপুর ১ টায় অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত ও ভুক্তভোগী সন্তোষ কুমার চৌধুরী বলেন, দীর্ঘ ৩২ বছর যাবত জুট কর্পোরেশনের ভূমি ইজারা গ্রহণ করে সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি। ইজারা বলবৎ থাকা সত্ত্বেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বেআইনি ও অন্যায় ভাবে ভূমি অন্যজনকে ইজারা দেয়। এ নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হলে পরবর্তীতে হাইকোর্টে রিট পিটিশন করা হয়।
হাইকোর্ট স্থিতি অবস্থা বজায় থাকার জন্য উভয়পক্ষকে জানালেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিনা নোটিশে পরিকল্পিতভাবে আমার পরিচালিত প্রতিষ্ঠান এবং গবেষণা কর্মকাণ্ডের প্রায় চার কোটি টাকার সম্পত্তি নিমিষেই ধ্বংসস্তুপে পরিণত করে। সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী সন্তোষ কুমার চৌধুরী লিখিত বক্তব্য পাঠ কালে কান্নাজড়িত কন্ঠে আরো বলেন, বর্তমান সরকার সংখ্যালঘু বান্ধব সরকার হওয়ার পরেও প্রশাসনের ভিতরে ঘাপটি মেরে থাকা কিছু দুষ্কৃতকারী সংখ্যালঘু নির্যাতন ও তাদের ভূমি দখল করে সরকারের সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, আমি একজন গবেষক হিসেবে বাতাস চালিত ইঞ্জিন আবিষ্কারের গবেষণায় নিয়োজিত। গবেষণাগারের মেশিনারি যন্ত্রপাতি সহ আনুষঙ্গিক সরঞ্জাম খরিদ করতঃ এযাবত ৪ কোটি টাকা খরচ করে প্রায় ৯৫শতাংশ গবেষণা কাজ সম্পন্ন করেছি এবং সুযোগের কারণে আমার দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টার ফসল গবেষণা কর্মকাণ্ড থেমে যাওয়ার পথে। এ ব্যাপারে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছি। লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, গত ১১ই জুলাই দুপুর ২ টার সময় ভূমি অধিগ্রহণ অধিদপ্তরের ম্যাজিস্ট্রেট আসিফ ইমতিয়াজ এর নেতৃত্বে সরকারের কিছু সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে হাইকোর্টের রিট অমান্য করে বেআইনিভাবে জায়গা দখল পূর্বক আমাকে উচ্ছেদ করে এবং কারখানা ও গবেষণা কর্মকান্ডে প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ নিমিষেই ধ্বংসস্তূপে পরিণত করে। এতে আমার প্রায় ৪ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে এর সুবিচার দাবি করছি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে ভুক্তভোগী সন্তোষ কুমার চৌধুরী আরও বলেন, সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট দোর্দণ্ড প্রভাব খাটিয়ে হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে কিভাবে ধ্বংসযজ্ঞ কর্মকাণ্ড করতে পারে জাতি আজ তা জানতে চায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দ্রুত তার ক্ষতিপূরণ ও সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান এবং এ ব্যাপারে তার সুদৃষ্টি কামনা করেন।
সংবাদ সম্মেলনে এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মিলেনিয়াম হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশন এর চট্টগ্রাম শাখা কমিটির মহাসচিব মৃদুল মজুমদার, মিলেনিয়াম হিউম্যান রাইটস এন্ড জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম শাখা কমিটির চেয়ারম্যান মোঃ লোকমান আলী, রতন সেনগুপ্ত, জিকু দত্ত, সুপ্রিয়া চৌধুরী,জয়ন্তী মজুমদার সহ আরো অনেকে।

মুকিম // রবিবার , ১৫ জুলাই ২০১৮,৩১ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email