জাল দলিল জালিয়াতি মামলার আসামি মাছুদা আক্তার গ্রেফতার;জেলহাজতে প্রেরণ

আল-আমিন ট্রেডের পক্ষে আমমোক্তার মোঃ ইকরাম; পিং- মৃত ইউনুস ভূঁইয়া,সাং-সিগন্যাল কলোনী, সরাইপাড়া, থানা পাহাড়তলী, জেলা -চট্টগ্রাম বাদী হইয়া চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, চট্টগ্রামে সি.আর ৪১১/১৬ ইং রুজু করিলে উক্ত মামলার অভিযোগের বিষয়ে পি.বি.আই (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন ) তদন্তক্রমে প্রতিবেদন দাখিল করেন এবং ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় আসামিগণের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু করা হয় এবং গত ২৬/৫/১৭ইং তারিখ হালিশহর থানার পুলিশ অভিযুক্ত ২ নং আসামি মাছুদা আক্তার, স্বামী:মোহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, সাং-কাশিপুর চৌধুরী বাড়ী, থানা:ছাগলনাইয়া জেলা: ফেনী,বর্তমান ঠিকানা:৬৩০,আনন্দপুর,রাজ্জাক ম্যানসন(৬ষ্টতলা) তাসফিয়া কমিউনিটি সেন্টারের পিছনে, ডাক:রামপুর,থানা:হালিশহর, জিলা: চট্টগ্রাম কে গ্রেফতার করিয়া বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করিলে মাননীয় চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, চট্টগ্রাম এর বিচারক জনাব মোহাম্মদ রবিউল আলম উক্ত আসামির জামিন শুনানী অন্তে না মঞ্জুর করিয়া আসামিকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

এই আসামি ও তার বোন শিরিন আক্তার গ্রহীতা হইয়া মুন্সি মিয়ার ৬জন ওয়ারিশকে কবলাদাতা সাজাইয়া স্থানীয় চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর ও প্যাড নকল করিয়া ওয়ারিশন সনদপত্র বানাইয়া সীতাকুন্ড সাব রেজিস্ট্রি অফিসে বিগত ১৭/৭/১৪ইং তারিখে ৪২৪১ নং নাম ছাফ কবলা দলিল রেজিস্ট্রি করেন। উল্লেখ্য মুন্সী মিয়ার ৬জন ওয়ারিশের নাম ঠিকানা সঠিক থাকিলে উক্ত ৬জন ওয়ারিশের ছবির কলামে অন্য মানুষের ছবি বসিয়ে অন্য মানুষকে সাব-রেজিস্ট্রারের সামনে উপস্থাপন করিয়া উক্ত দলিল মঞ্জুরি ও রেজিস্ট্রি করেন।

এমনকি উক্ত দলিলের সময় তাহাদের জাতীয় পরিচয় পত্র ভুয়া সৃজন করা হয়। উক্তরুপ ভুয়া সৃজিত দলিলের অনুবলে বাদীর জায়গা দখল করিতে গেলে বাদী জানিতে পারিয়া উক্ত মামলা আনয়ন করেন। এ প্রসঙ্গে বাদীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট ধৃতিমান আইচ এর সহিত যোগাযোগ করিলে তিনি বলেন, এটি একটি সংঘবদ্ধচক্র। দলিল লেখক থেকে শুরু করে ও সাক্ষী সবাই যোগসাজশ ক্রমে ভুয়া দলিল সৃজন করিয়া অনেক নিরীহ মানুষকে সর্বস্বান্ত করেছে এবং মামলা-মোকদ্দমায় হয়রানি হচ্ছে। এই জালিয়াতি চক্রের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে সীতাকুণ্ড সাব রেজিস্ট্রি অফিসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সতর্ক হওয়া জরুরি কারণ একজন মানুষের জায়গা অন্য মানুষকে দাঁড় করিয়া রেজিস্ট্রি করা গ্রহণ রেজিস্ট্রি প্রদান করার এই ধরনের সুযোগ পাইলে অনেকে তাহাদের ন্যায্য সম্পত্তির অধিকার হতে বঞ্চিত হইবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email