চিরতরে নিভে গেলেন আধুনিক সৃষ্টিতত্ত্বের উজ্জ্বল এই নক্ষত্র স্টিফেন হকিং

চিরতরে নিভে গেলেন আধুনিক সৃষ্টিতত্ত্বের উজ্জ্বল এই নক্ষত্র স্টিফেন হকিং। শারীরিক নিশ্চলতাকে অদম্য ইচ্ছাশক্তি আর আধুনিক প্রযুক্তির প্রেরণায় জয় করেছিলেন হকিং। বুধবার সকালে ৭৬ বছর বয়সে চিরতরে নীরব হলেন তিনি। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো পারিবারিক সূত্রে ব্রিটিশ এই পদার্থবিদ ও জ্যোতির্বিজ্ঞানীর জীবনাবসানের খবর দিয়েছে।

গবেষণামূলক গ্রন্থ, ‘এ ব্রিফ হিস্টোরি অব টাইম’-এর জন্য তিনি ব্যাপকভাবে সমাদৃত হন।
হকিংকে বিশ্বের সমকালীন তাত্ত্বিক পদার্থবিদদের মধ্যে অন্যতম হিসাবে বিবেচনা করা হয়। তিনি কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের লুকাসিয়ান অধ্যাপক (স্যার আইজ্যাক নিউটনও একসময় এই পদে ছিলেন)। ২০০৯ সালের ১ অক্টোবর তিনি অবসরে যান। তবে এরপর তিনি কেমব্রিজের গনভিলি এবং কেয়াস কলেজের ফেলো হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

স্টিভেন উইলিয়াম হকিং, সিএইচ, সিবিই, এফআরএস, পিএইচডি বিশিষ্ট ইংরেজ তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী ও গণিতজ্ঞ হিসেবে বিশ্বের সর্বত্র পরিচিত ব্যক্তিত্ব। তাঁকে বিশ্বের সমকালীন তাত্ত্বিক পদার্থবিদদের মধ্যে অন্যতম হিসাবে বিবেচনা করা হতো।

১৯৪২ সালের ৮ জানুয়ারি ইংলান্ডের অক্সফোর্ডে জন্ম হকিংয়ের। ১৯৬৩ সালে আক্রান্ত হন দুরারোগ্য মোটর নিউরন রোগে। চিকিৎসকরা তার আয়ু বেঁধে দেন দুই বছর। তবে সেই ভবিষ্যদ্বাণীকে অতিক্রম করে অর্ধশতাব্দীরও বেশি সময় তিনি পৃথিবীকে আলোকিত করেছেন পদার্থ ও গণিতে অসামান্য অবদান রাখার মধ্য দিয়ে। চলার শক্তি হারালেও কম্পিউটারের সাহায্যে যোগাযোগ রক্ষা করতেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email