চাঁদপুর মেঘনা নদীতে ক্লিংকারবোঝাই লাইটার জাহাজডুবি

চাঁদপুরের হাইমচরে মেঘনা নদীতে এমভি ‘মিলিনিয়াম’ নামের একটি ক্লিংকারবোঝাই লাইটার জাহাজডুবির ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার রাতে হাইমচর উপজেলার নীলকমল ও গাজীপুর ইউনিয়নের মাঝামাঝি জায়গায় কাটাখালি মাঝের চর এলাকায় এমভি শাফাতুল হক-২ নামের অপর জাহাজের ধাক্কায় এই ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজে থাকা মাষ্টারসহ ১২ জন শ্রমিক উদ্ধার হয়েছে। এদের মধ্যে লস্কর ও বাবুর্চি আহত হয়েছেন।

উদ্ধার হওয়া ১২ জন হলেন, জাহাজের মাস্টার শামছুল হক, শ্রমিক বেলায়েত হোসেন, মো. জাহির, মো. নুরুন্নবী, মো. বেলায়েত হোসেন, মো. বদিউজ্জামান, মো. জাহিদ হোসেন, মোহাম্মদ আলী, মানিক মিয়া, মো. সুমন, নুরুন্নবী-২ ও মো. নয়ন।

জাহাজের মাস্টার শামছুল হক জানান, বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে এক হাজার টন ক্লিংকার নিয়ে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম থেকে জাহাজটি ছেড়ে আসে। জাহাজটি কাটাখালি মাঝের চর এলাকায় আসলে নারায়ণগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী এমভি শাফাতুল হক-২ জাহাজটির ধাক্কা লেগে এমভি মিলিনিয়াম কাত হয়ে আস্তে আস্তে নদীতে ডুবতে থাকে।

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থল দিয়ে যাওয়া এমভি ওশান লাইট নামে অপর জাহাজ তাদের এ অবস্থা দেখে ১২ জনকে উদ্ধার করে। তবে লস্কর নুরুন্নবী ও বাবুর্চি নয়ন আহত হয়েছেন। তাদেরকে হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটওয়ারী জানান, ঘটনার খবর পেয়ে রাত ৯টায় আমরা ঘটনাস্থল মেঘনার পার থেকে পুলিশের সহায়তায় মাস্টার ও শ্রমিকদের উদ্ধার করে রাত ১১টায় হাইমচর থানায় নিয়ে আসি। আর দুর্ঘটনাকবলিত জাহাজটা ওই স্থানে পানিতে নিমজ্জিত অবস্থায় রয়েছে।

হাইমচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনোজিত রায়জানান, খবর পেয়ে আমরা ওই জাহাজের ১২ জনকে উদ্ধার করেছি। এমভি মিলিনায়ম জাহাজটি ক্লিংকারবোঝাই ছিল। আর অপর জাহাজটি সম্পর্কে এখনো কোনো তথ্য পাইনি। আমরা খোঁজ খবর নিচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email