গ্রাম বাংলার সোনার টুকরোগুলো খুঁজে বের করে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দিচ্ছি: প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্কঃ গ্রাম বাংলায় সোনার টুকরো ছড়িয়ে আছে। আমরা সেই সোনার টুকরোগুলো খুঁজে বের করছি। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দিচ্ছি। বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ রোববার বেলা ১১টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ উপস্থিত ছিলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, সারা দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মেধাবীদের দেশে বিদেশে কাজের সুযোগ করে দেয়া হবে। যাতে তারা নিজেদের মেধা মননের প্রতিফলন ঘটাতে পারেন। সারা বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মেধাবী হচ্ছে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা। দেশে-বিদেশে বহু জায়গায় গিয়ে আমার এ অভিজ্ঞতা হয়েছে। আমি এইটুকু আশা করবো যে, আমাদের ছাত্ররা মন দিয়ে পড়ালেখা করবে। দেশের জন্য কাজ করবে।

তিনি বলেন, দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষার বিকল্প নেই। প্রযুক্তি জ্ঞানসম্মত বাংলাদেশকে গড়তে শিক্ষার কোনও বিকল্প নেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিক্ষার সামগ্রিক মানোন্নয়নে কার্যকর উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তিনি কুদরত-ই-খুদা কমিশন গঠন করেছিলেন। কিন্তু পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির জনককে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। এরপর শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ সব দিক থেকে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা থমকে দাঁড়ায়। পঁচাত্তরের পর অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীরা শিক্ষার মানোন্নয়নে কোনও কাজ করেনি। তারা কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে অস্ত্র তুলে দেয়।

জাতীয় পর্যায়ের সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতা ২০১৮ তে অংশগ্রহণ করে মোট ১০৮ জন শিক্ষার্থী। এদের মধ্য থেকে তিনটি বিভাগে ৪টি বিষয়ে মোট ১২ জনকে চূড়ান্ত বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। তবে এ ১২ জনের সঙ্গে অংশগ্রহণকারী বাকি ৯৬ জনকেও পুরস্কৃত করা হবে।

মুকিম // রবিবার , ০৮ জুলাই ২০১৮, ২৪ আষাঢ় ১৪২৫, ২৩ শাওয়াল ১৪৩৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email