কলাপাড়ায় মাদ্রাসা সুপারের বসতঘরে সন্ত্রাসী হামলা ভাংচুর লুটপাট

জাহিদ রিপন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি॥ পটুয়াথালীর কলাপাড়ার আক্কেলপুর দাখিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার মাওলানা আব্দুল মান্নানের বসতঘরে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ভাংচুর, মারধর ও লুটপাট করা হয়েছে। রবিবার শেষ বিকেলে সন্ত্রাসীদের এমন হামলায় জখম হয়েছেন মাওলানা মান্নানের বৃদ্ধ বাবা মোতালেব শরীফ, মা হালিমা খাতুন ও স্ত্রী আঞ্জুমান আরা খুশী। প্রায় ঘন্টাব্যাপী আচমকা এমন হামলার ঘটনায় ওই বাড়ির লোকজনসহ আশপাশের মানুষ হতবাক বনে গেছে।

এ ঘটনার জের ধরে ওই এলাকায় বর্তমানে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনায় স্থানীয় জুলহাসকে প্রধান করে আট জনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। কলাপাড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিন, ওসি জাহাঙ্গীর হোসেনসহ পুলিশের একটি টিম সন্ধ্যায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জেলার কলাপাড়া উপজেলার আক্কেলপুর গ্রামে এ সন্ত্রাসী কুপিয়ে তছন্ছ করা হয়েছে ঘরের বেড়াসহ আসবাবপত্র থেকে মালামাল। থালাবাসন পর্যন্ত ভাংচুর করা হয়েছে। লুটে নেয়া হয়েছে প্রায় ৭৫ হাজার টাকাসহ তিন ভরি স্বর্ণালঙ্কার। মাওলানা মান্নান জানান, তাকে ২১ জুলাই বেধড়ক মারধর করে ওই একই চক্র। আহত অবস্থায় তিনি বর্তমানে ঢাকায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

পুলিশ জানায়, মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি গঠণকে কেন্দ্র করে ওই এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল আমিনের সঙ্গে বিরোধ রয়েছে। তাকে এই হামলার মদদদাতা হিসেবে দায়ী করেছেন মাওলানা মান্নান। তবে রুহুল আমিন পাল্টা অভিযোগে দাবি করেন, ভারপ্রাপ্ত সুপার অবৈধভাবে জামায়াত-বিএনপির লোকজনকে নিয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠণ করে বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম করে যাচ্ছেন। এসব অনিয়মের প্রতিবাদ করায় হামলা-ভাংচুরের মিথ্যা অভিযোগ করেছেন।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, আসামিরা সবাই পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

আমিরুল মুকিম // সোমবার, ৩০ জুলাই ২০১৮ // ১৫ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email