এমএলএম কোম্পানি ডেসটিনির অবসায়ন প্রশ্নে হাইকোর্টের আদেশ সোমবার

এমএলএম কোম্পানি ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেড অবসায়ন (অবলুপ্ত) প্রশ্নে হাইকোর্টের দেয়া আদেশের বিরুদ্ধে করা আবেদনের ওপর আদেশ আগামীকাল সোমবার।

আজ রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ শুনানি আদেশের এ দিন ধার্য করেন।

গত ১৫ মে ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেড কোম্পানি অবসায়ন বা অবলুপ্তি করার নির্দেশ কেন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার বিচারপতি এম আর হাসানের ( মো. রেজাউল হাসান) একক বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আবেদনকারীদের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী রোকনউদ্দিন মাহমুদ। আর ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেডকে নিবন্ধন দেয়া দপ্তর রেজিস্টার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মসের (আরজেএসসি) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ কে এম বদরুদ্দোজা।

আদেশের পর বদরুদ্দোজা জানান, ২০০০ সালের ১৪ ডিসেম্বর রেজিস্টার্ড হওয়া কোম্পানিটি ২০১২ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত বর্ষগুলোর বার্ষিক সাধারণ সভা বিলম্বের মার্জনা চেয়ে ওই কোম্পানির পরিচালক লে. জে. এম হারুন-অর-রশীদ ও ৫ শেয়ার হোল্ডার হাইকোর্টে আবেদন করেন।

হারুন-অর-রশীদ ছাড়া বাকি ৫ জন হলেন- কাজী মোহাম্মদ আশরাফুল হক, মো. সাইফুল আলম রতন, সিরাজুম মুনীর, মো. জাকির হোসেন ও বিপ্লব বিকাশ শীল। আবেদনে বিবাদী করা হয়েছে, জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মসের রেজিস্টার ও ডেসটিনি-২০০০ লিমিটেডকে।

আইনজীবী একেএম বদরুদ্দোজা বলেন, আইন অনুসারে প্রতি ইংরেজি পঞ্জিকা বছরে বার্ষিক সাধারণ সভা করতে হয়। এতে ব্যর্থ হলে কোম্পানির যে কোনো সদস্যের আবেদনক্রমে আদালত ওই কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা আহ্বান করতে অথবা আহ্বান করার নির্দেশ দিতে পারবেন। আদালত ওই সভা আহ্বান অনুষ্ঠান ও পরিচালনার জন্য যেরূপ সমীচীন বলে বিবেচনা করবেন সেই রূপ অনুবর্তী (consequential) ও আনুষঙ্গিক (incidental) আদেশ দিতে পারবে।

আইনজীবী সূত্র বলেছে, ২০১২ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত এজিএম না হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ডেসটিনি ২০০০-এর পরিচালক লে. জেনারেল (অব.) হারুন অর রশীদ ও কয়েকজন শেয়ারহোল্ডার গত এপ্রিলে আবেদনটি করেন।

‘ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেড’ ২০০০ সালে রেজিস্ট্রেশন নিয়ে যাত্রা শুরু করে ২০০১ সালে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email