একাদশ শ্রেণির ভর্তি বাণিজ্য বন্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করা হবে

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি :

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর সভাপতি ছাত্রনেতা মুহাম্মদ মাছুমুর রশিদ বলেন, ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে কলেজ ও মাদ্রাসা মিলিয়ে প্রায় লক্ষাধিক শিক্ষার্থী অনলাইনের মাধ্যমে ভর্তি নিশ্চায়ন করেছে। কিন্তু কলেজ ও মাদ্রাসাগুলোতে ভর্তির সময় মন্ত্রনালয়ের জারিকৃত পরিপত্র না মেনে অনেক প্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত টাকা আদায় করছে। এতে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা দুর্ভোগে পড়ছে এবং শিক্ষার বাণিজ্যকায়নের চিত্র স্পষ্ট হয়ে ওঠেছে। তিনি আরো বলেন অতিরিক্ত অর্থ আদায়কারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর তালিকা তৈরি করে আমরা সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে ভর্তি বাণিজ্যসহ সকল ধরণের শিক্ষা বাণিজ্য রুখে দিতে আন্দোলন সংগ্রাম করবো। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা মিজানুর রহমানের পরিচালনায় সভায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ছাত্রনেতা আবদুল্লাহ আল মাসুম, মুহাম্মদ শাহ্ জালাল, মুহাম্মদ মিছবাহ্ খান, মুহাম্মদ রফিক, মুহাম্মদ গোলাম মেস্তাফা, শিহাব উদ্দীন, মুহাম্মদ এহসান, মুহাম্মদ কাউসার খাঁন, মুহাম্মদ ফোরকান রেজা, মুহাম্মদ এরশাদুল করিম, মুহাম্মদ মঈনুদ্দীন কাদেরী, হাবিবুল্লাহ আরাফাত, মুহাম্মদ আদনান তাহসিন আলমদার, মুহাম্মদ শাহাদাত হোসাইন, মুহাম্মদ বাবর, মুহাম্মদ আবদুস সাত্তার, মুহাম্মদ আরাফাত, আবদুল কাদের, মুহাম্মদ সাব্বির, মাহমুদুল হাসান, মুহাম্মদ আরমান, মুশফিক উদ্দিন রায়হান, মুহাম্মদ ওয়াহেদ, মুহাম্মদ ইলিয়াস, মুহাম্মদ মিজান প্রমুখ। সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, ভর্তি বাণিজ্য ছাড়াও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সনদ, নম্বরপত্র ও প্রশংসা পত্রের মত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উত্তোলন করতে গিয়ে হয়রানির শিকার হচ্ছে সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীরা। বোর্ড নির্ধারিত ফি এর পাশাপাশি উন্নয়ন ফি ও নানা রকমের ফি এর কথা বলে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা হচ্ছে। এধরণের অনিয়মে জড়িত প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে শাস্তি প্রদান ও কালো তালিকাভুক্তির জন্য তিনি জেলা প্রশাসন ও শিক্ষাবোর্ড কর্তাদের আহবান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email