আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার মাসে শহীদ মিনার ও কলেজ প্রাঙ্গণ পরিস্কার কর্মসূচী অনুষ্ঠিত

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ ক্লিন বাংলাদেশের উদ্যেগে চট্টগ্রাম এনায়েত বাজার মহিলা কলেজে সকাল ১১ টায় শহীদ মিনার পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়। অনুষ্ঠানে ক্লিন বাংলাদেশের সভাপতি রাহিলা রিমা বেগমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনায়েত বাজার মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ তাহারুন সবুর ডালিয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনায়েত বাজার মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ শাহিনা ফেরদৌস, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ কমিটির সহ-সম্পাদক সরজিৎ দত্ত সৈকত, চট্টগ্রাম রিপোর্টার্স ইউনিটির অর্থ সম্পাদক মোহাম্মদ নুরুল কবির,ফাউন্ডার এবং সিইও এর সাধারণ সম্পাদক আরাফাত ইসলাম আকিব।

জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন কর্মসূচী শুরু হয়। সরজিৎ দত্ত সৈকত বলেন, পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ ‘‘বীর’’ ছেলে ও ‘‘বিহঙ্গ’’ মেয়ে ¯স্বেচ্ছাসেবীদের পাশাপাশি পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধিত্বে সব সময় নিয়োজিত থাকবেন। ফলে দেশের সকল জনগণ ৪৬% রোগজীবাণুর আক্রমন থেকে সুরক্ষা পাবে। সর্বোপরি পরিবর্তী প্রজন্মের জন্য নিশ্চিত হবে স্বাস্থকর ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ। তাদের উদ্দেশ্য, আপনারা-আমরা মিলে দেশের সকল শহীদ মিনার, বুুদ্ধিজীবি চত্বর, বধ্যভূমি, রাষ্ট্রের যাঁদের অবদান স্কুল-কলেজ, মেডিকেল, রাস্তা-ঘাট, পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করে রাখবো । দেশ হিসেবে বিশ্ব মানচিত্রে স্থান করে নিবে আমাদের প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশের নাম।

ক্লিন বাংলাদেশের সভাপতি রাহিলা রিমা বলেন, আমরা সব সময়ই মানুষের সেবায় নিজেদেরকে নিয়োজিত রাখব। আমরা দেশের সচেতন নাগরিক হিসেবে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলবোনা। আমরা সকলেই সবাই এই বিষয়ে সচেতন করবো। আমরা আমাদের অবস্থান থেকে নিজ এলাকা স্কুল-কলেজ আঙিনা সর্বত্র পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য সবাইকে সচেতন করবো। যাতে কেউ আশে পাশে ময়লা না ফেলে সে বিষয়ে সতর্ক করতে হবে। আমরা সব সময় দেশের সেবা করব এবং বাংলাদেশকে একটি সুন্দর দেশ, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা শক্তিশালী ও আদর্শ রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তুলবো।

ক্লিন বাংলাদেশের কার্যক্রম পরিচালক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ক্লিন বাংলাদেশের উদ্যোগে নির্ধারিত প্রতি সপ্তাহে একদিন যে কোন একটি নির্দিষ্ট এলাকা বাছাই করে এলাকার আশেপাশে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করতে হবে এবং প্রতিটি এলাকার সরাসরি মাইকিং এর মাধ্যমে আশেপাশের দোকানদার ও সাধারণ জনগণকে ময়লা আবর্জনা না ফেলে সেই বিষেয়ে সচেতনতা এবং ডাস্টবিন ব্যবহারের পরামর্শ প্রধান করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email