আদালতের নির্দেশ ছাড়া বিএনপিকে নির্বাচনে নিয়ে আসার কোনো সুযোগ সরকারের নেই

আদালতের নির্দেশ ছাড়া বিএনপিকে নির্বাচনে নিয়ে আসার কোনো সুযোগ সরকারের নেই। আদালতের যে রায়, তার সত্যায়িত কপি নিয়ে এত দিন বিএনপি সন্দেহ করেছে। কপি কাল পেয়ে গেছে। পাওয়ার পরও আবার নতুন নতুন নানা কথা বলছে। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আদালত নির্বাচনে অংশ নেওয়ার অনুমতি না দিলে আওয়ামী লীগ বা সরকার কি করবে।

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার নিমতলা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

এদিন ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। ট্রাফিক আইন না মানার দায়ে ছয়টি যানবাহনকে ১৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (আদালত-৭) মুহাম্মদ আবদুর রহিম সুজন এ আদালত পরিচালনা করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, রায়ের একটি অংশে আছে, খালেদা জিয়ার অপরাধ রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধের শামিল। রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধ যিনি বা যাঁরা করেন, আদালতের আদেশ অনুযায়ী তাঁদের ভাগ্য নির্ধারিত। আদালতের রায়ে বিএনপির চেয়ারপারসন যদি নির্বাচনে অংশগ্রহণের যোগ্যতা হারিয়ে ফেলেন, সে অবস্থায় বিএনপিকে নির্বাচনে নিয়ে আসার কোনো সুযোগ সরকারের নেই।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘আদালতের আদেশেই সবকিছু হবে। তাঁরা এখন উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারেন। আপিল করার পর আদালত যদি খালেদা জিয়াকে নির্বাচন করার অনুমতি না দেন, তাহলে আওয়ামী লীগের কী করার আছে? সরকারের কী করার আছে? আজ যেখানে রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধের দায়, সেখানে যদি নির্বাচন করার যোগ্যতা তিনি অর্জন না করেন, তাহলে সেখানে সরকারের কিছু তো করার নেই। এখানে বিষয়টি আদালতের, এখানে সরকারের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা আরও বলেন, একজন কি সৎ নেতা বিএনপিতে নেই দণ্ড ছাড়া, যাকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা যেতো না? দণ্ডিত ব্যক্তিকে, দুর্নীতিবাজ ব্যক্তিকে, বিদেশি ফেরারি আসামিকে বিএনপির চেয়ারপারসন করার মধ্য দিয়ে এটাই প্রমাণ হলো, এই দল ক্ষমতায় গেলে আবারও বাংলাদেশ দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email