আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চলমান অভিযানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৮

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চলমান অভিযানে আজও পাঁচ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৮ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাতে কুমিল্লায় দুইজন, চাঁদপুরে একজন, ময়মনসিংহ একজন, দিনাজপুরের বীরগঞ্জ একজন, জয়পুরহাট একজন ও ঠাকুরগাঁওয়ে একজন মারা যান। এছাড়া দিনাজপুরে আরও একজন মাদক ব্যবসায়ী নিজেদের মাঝে গোলাগুলিতে মারা যান বলে পুলিশ দাবি করেছে।

কুমিল্লার শাহজানপুর থানার ওসি শাহাজাহান কবির জানিয়েছেন, ব্রাহ্মণপাড়ায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে পিস্তল, ৪০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ৩ পুলিশ সদস্য।

নিহত মাদক ব্যবসায়ী বাবুল ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার আশাবড়ি এলাকার মালেকের ছেলে, তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মাদকসহ ১৬টি মামলা রয়েছে। নিহত অপর মাদক ব্যবসায়ী আলমাস একই উপজেলা উত্তর তেতাভূমি এলাকার আফাজ উদ্দিনের ছেলে, তার বিরুদ্ধে ৮টি মামলা রয়েছে।

নিহতদের মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে চাঁদপুরের কচুয়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বাবলু (৪২) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শুক্রবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। তিনি চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানান কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মাহবুবুর রহমান।

তিনি আরও জানান, বাবলুকে উপজেলার ১১নং দক্ষিণ গোহাট ইউনিয়নের পাড়াগাঁও গ্রাম থেকে আটক করা হয়। থানায় নিয়ে আসার পথে উপজেলার ১০নং উত্তর গোহাট ইউনিয়নের ব্রিক ফিল্ডের কাছে বাবলুর সহযোগীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায় এবং ককটেল নিক্ষেপ করে তাকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে তাদের সঙ্গে গোলাগুলি হয়। এ সময় বাবলু গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হলে তাকে দ্রুত কচুয়া হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

এছাড়া ময়মনসিংহে পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন শাহজাহান (৩০) নামে শীর্ষ এক মাদক বিক্রেতা।

শুক্রবার(২৫ মে) দিনগত রাত দেড়টার দিকে জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারবাড়ী ইউনিয়নের তেলওয়ারী গন্ডিমোড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাহজাহানের বিরুদ্ধে মাদক আইনে আটটি মামলা রয়েছে।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন ও সদর উপজেলার রামসাগরে দুই দল মাদক বিক্রেতার মধ্যে গুলি বিনিময়ে আরও একজন মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার(২৫ মে) রাত ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন-বীরগঞ্জ উপজেলার চিহ্নিত মাদক বিক্রেতা সাবদারুল ইসলাম (৪২) ও সদর উপজেলার রামসাগর আব্দুস সালাম (৪৭)।

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেদওয়ানুর রহিম জানান, সদর উপজেলার ছয় নম্বর আউলিয়াপুর ইউনিয়নের রামসাগর এলাকায় দুই দল মাদক বিক্রেতার মধ্যে গুলি বিনিময়ে আব্দুস সালাম (৪৭) নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। নিহত আব্দুস সালাম ওই এলাকার মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে।

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার ভিমপুর এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রেন্টু নামের এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ফেনসিডিল, এক নলা বন্দুক ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে বলেও দাবি করেছে র‌্যাব।

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্প কমান্ডার শামীম হোসেন জানান, মাদকের একটি বড় চালান কেনাবেচা হচ্ছে এমন খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি দল রাতে ভিমপুর এলাকায় যায়। এসময় র‌্যাবকে লক্ষ্য করে মাদক বিক্রেতারা গুলি ছোড়ে। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছুড়লে রেন্টু গুলিবিদ্ধ হন। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে পাঁচবিবি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্ধুকযুদ্ধে মোবারক হোসেন কুট্টি (৪৪) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৩ পুলিশ সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয় বিস্ফোরিত ৫টি ককটেল বন্দুকের কার্টিজ ও বেশকিছু দেশীয় অস্ত্র।

শনিবার(২৬ মে) ভোরে সদর উপজেলার পশ্চিম বেগুনবাড়ি ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পশ্চিম বেগুন বাড়ি এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় কুট্টিসহ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের উপর হামলা চালায়। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি চালালে মাদক ব্যবসায়ীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে পাল্টাগুলি চালায়। এতে কুট্টি গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন এবং আহত হন পুলিশের ৩ সদস্য।

নিহত মোবারক হোসেন কুট্টি সদর উপজেলার ছিট চিলারং গ্রামের মৃত শফির উদ্দিনের ছেলে। কুট্টির বিরুদ্ধে সদর থানায় ১৫টি মামলা রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error

নিউজ টি শেয়ার করুন :)

Instagram
LinkedIn
Share
Follow by Email